বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বৃষ্টির জেরে খারিফ শস্যের চাষে ক্ষতির আশঙ্কা, আবারও কাঁদাতে পারে পেঁয়াজ
বৃষ্টির জেরে খারিফ শস্যে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা, আবারও কাঁদাতে পারে পেঁয়াজ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
বৃষ্টির জেরে খারিফ শস্যে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা, আবারও কাঁদাতে পারে পেঁয়াজ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

বৃষ্টির জেরে খারিফ শস্যের চাষে ক্ষতির আশঙ্কা, আবারও কাঁদাতে পারে পেঁয়াজ

  • দেশজুড়ে আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে মৌসুমী বায়ু। বিভিন্ন রাজ্যে অঝোরে চলছে বৃষ্টি।

দেশজুড়ে আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে মৌসুমী বায়ু। বিভিন্ন রাজ্যে অঝোরে চলছে বৃষ্টি। সেই পরিস্থিতিতে গুরুত্বপূর্ণ খারিজ শস্যের নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় মাথায় হাত পড়েছে কৃষকদের। তার ফলে পেঁয়াজের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।

আপাতত বঙ্গোপসাগরের উত্তর ও মধ্যভাগে তৈরি একটি নিম্নচাপের জেরে পশ্চিমবঙ্গের বিস্তীর্ণ অংশে ভালোমতো বৃষ্টি হচ্ছে। উত্তর ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের উপর একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা তৈরি হয়েছে। তার প্রভাবে গুজরাত, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় এবং ওড়িশার মতো রাজ্যে বৃষ্টি হচ্ছে। বর্ষণ হচ্ছে উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, পঞ্জাব, দিল্লি, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশেও। উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, পঞ্জাবের একাংশে ধানের জমি জলের তলায় চলে গিয়েছে। পেঁয়াজ, অন্যান্য খারিজ শস্যের চাষও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। মৌসম ভবনের তরফে জানানো হয়েছে, কয়েকটি এলাকা জলের তলায় চলে যাওয়ায় বিভিন্ন খারিজ শস্য ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

বেসরকারি পরিসংখ্যান প্রদানকারী সংস্থা সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ানের তরফে জানানো হয়েছে, বৃষ্টির জেরে যদি বাজারে ফসল কম আসে, তাহলে দাম বাড়বে। যা মধ্যবিত্তের আরও দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে তুলবে। এমনিতেই করোনাভাইরাসে ধাক্কায় প্রচুর মানুষ চাকরি খুইয়েছেন। অনেকেই কম বেতনের চাকরি করতে বাধ্য হয়েছেন। শনিবার রেটিং প্রদানকারী সংস্থা ক্রিসিল রেটিংয়ের তরফে জানানো হয়েছে, ‘বর্ষার খামখেয়ালিপনার জন্য পেঁয়াজ চাষে দেরি হতে পারে। তার ফলে আবারও ক্রেতাদের কাঁদাতে পারে অধিকাংশ ভারতীয় গৃহস্থের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পেঁয়াজ।’ বিশেষত গ্রীষ্মকালীন পেঁয়াজের ৭৫ শতাংশই আসে মহারাষ্ট্র, কর্নাটক এবং অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে। সেখানেও বৃষ্টি হচ্ছে।

তবে এখনই হতাশ হয়ে পড়তে রাজি নন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। পঞ্জাবের কৃষি দফতরের বিজ্ঞানী অশোক রেঞ্জেন বলেন, ‘যদি ভারী বৃষ্টিপাত চলতে থাকে, তাহলে ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তবে সেপ্টেম্বরে হালকা বৃষ্টি চাষের পক্ষে ভালো।’

বন্ধ করুন