বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > যোগীরাজ্যে করোনায় মৃতের দেহ নদীতে ফেলছেন আত্মীয়রা, ভাইরাল ভিডিয়ো
ছবি সৌজন্যে টুইটার
ছবি সৌজন্যে টুইটার

যোগীরাজ্যে করোনায় মৃতের দেহ নদীতে ফেলছেন আত্মীয়রা, ভাইরাল ভিডিয়ো

  • ভাইরাল ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, উত্তরপ্রদেশের বলরামপুরে রাপ্তি নদীতে এক করোনা রোগীর দেহ ফলছেন পিপিই কিট পরে থাকা ব্যক্তি।

করোনা আবহে উত্তরপ্রদেশের নদীগুলিতে ভাসছে দেহ। এই দেহগুলির মধ্যে একটা বড় অংশ কোভিডে মৃত্যু হওয়া ব্যক্তিদের। এই নিয়ে গত বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই বিরোধীদের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকারকে। এই আবহে এবার এক ভিডিয়ো ভাইরাল হল, যাতে দেখা যাচ্ছে, উত্তরপ্রদেশের রাপ্তি নদীতে এক করোনা রোগীর দেহ ফলছেন পিপিই কিট পরে থাকা ব্যক্তি। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের বলরামপুর জেলায় ঘটেছে। এই ভিডিয়ো ভাইরাল হলেই আরও অস্বস্তি বেড়েছে যোগী সরকারের।

ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, একটি ব্রিজের উপর থেকে প্লাস্টিকে জড়ানো একটি মৃতদেহ নীচে নদীতে ফেলছন এক ব্যক্তি। সেই ব্যক্তির গায়ে রয়েছে পিপিই কিট। পিপিই কিট পরে থাকা ব্যক্তির সঙ্গে ভিডিয়োতে আরও একজনকে দেখা যায়। সেই ব্যক্তিও এই কাজে সাহায্য করছিল। এদিকে এভাবে দিনের বেলায় এহেন কাজ কেউ কী করে করতে পার, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন উঠেছে প্রশাসনের ব্যর্থতা নিয়ে। এদিকে এই ঘটনা ভাইরাল হতেই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সঞ্জয় শুক্লা নামক এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মহামারী আইনের অধীনে মামলা দায়ের হয়েছে। অভিযোগ, এই ঘটনার সঙ্গে এপি মিশ্র নামক এক চিকিত্সকও জড়িত।

বলরামপুরের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ভিবি সিং জানিয়েছেন, 'প্রাথমিক তদন্তের পর জানা গিয়েছে যে, ২৫ মে ওই রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তার তিনদিন পর তাঁর মৃত্যু হয়। কোভিড প্রোটোকল মেনেই তাঁর দেহ আত্মীয়দের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তদন্তে দেখা গিয়েছে যে, আত্মীয়রাই দেহটি নদীতে ফেলে দিয়েছেন। আমরা মামলা দায়ের করেছি। কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

করোনা আবহে নদীতে কয়েক হাজার মৃতদেহ ভেসে গিয়েছে গত কয়েকদিনে। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই যোগী সরকার তত্পর হয়েছে। ভেসে যাওয়া দেহ উদ্ধার করে তা সত্কার করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে পুলিশের তরফে। ওদিকে নদীর আশেপাশে থাকা বাসিন্দারা এই বিষয়টি নিয়ে ভীত সন্ত্রস্ত। এদিকে নদীর পারে বালি চাপা অবস্থাতেও পাওয়া গিয়েছে হাজারের উপর দেহ। এদের অনেকেরই করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। এর জেরে এই দেহগুলি থেকে করোনা ছড়ানোর আশঙ্কাও থেকে যাচ্ছে।

বন্ধ করুন