গোয়ায় মাছ বিক্রি চলছে (ছবি সৌজন্য এএনআই)
গোয়ায় মাছ বিক্রি চলছে (ছবি সৌজন্য এএনআই)

মৎস্যচাষে ২০,০০০ কোটি বিনিয়োগ, পাঁচ বছরে ৫৫ লাখের বেশি কর্মসংস্থান : নির্মলা

  • ২০১৯ সালের বাজেটে ‘প্রধানমন্ত্রী মৎস্য সম্পদ যোজনা’-র ঘোষণা করা হয়েছিল।

২০১৯ সালের বাজাটে ‘প্রধানমন্ত্রী মৎস্য সম্পদ যোজনা’-র ঘোষণা করা হয়েছিল। লকডাউন পরিস্থিতিতে তাতে নতুন করে ২০,০০০ কোটি টাকা টাকা বরাদ্দ করল নরেন্দ্র মোদী সরকার।

‘আত্মনির্ভর ভারত’ আর্থিক প্যাকেজের আওতায় শুক্রবার পুরোপুরি কৃষি সংক্রান্ত দাওয়াইয়ের ব্যাখ্য়া দেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তিনি জানান, লকডাউনের দু'মাসে কৃষিকাজের মতো মৎস্যচাষের ক্ষেত্রেও একাধিক পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্র। দেওয়া হয়েছে একাধিক সুযোগ-সুবিধা। সেইসঙ্গে নয়া প্যাকেজে মৎস্যচাষ উন্নয়নের জন্য ২০,০০০ কোটি টাকা মঞ্জুর করা হচ্ছে বলে জানান কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

কীভাবে সেই অর্থ ব্যয় করা হবে, সেটাও জানান সীতারামন। বলেন, 'সামুদ্রিক, অন্তর্দেশীয় মৎস্যচাষের ক্ষেত্রে ১১,০০০ কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে। বাকি ৯,০০০ কোটি টাকা মাছ ধরার জায়গা, হিমঘর, বাজারের মতো পরিকাঠামো ক্ষেত্রে পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজে ব্যবহৃত হবে।' 

কেজ কালচার (জনের মধ্যে একটি নির্দিষ্ট বাক্স বা খাঁচায় মাছ চাষ করা), সমুদ্রে মৎস্যচাষ, অ্যাকোরিয়ামের মাছ চাষ, মাছ ধরার জন্য নতুন ভেসেল, পরীক্ষাগারের মতো ক্ষেত্রের উন্নয়নেও জোর দেওয়া হবে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। একইসঙ্গে যে সময় মৎস্যজীবীদের মাছ ধরতে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা থাকে, সেই সময় তাঁদের সহায়তা করা, ব্যক্তিগত এবং নৌকার বিমার বন্দোবস্তও করা হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর দাবি, 'নয়া এই সিদ্ধান্তের ফলে আগামী পাঁচ বছরে বাড়তি ৭০ লাখ টন মৎস্যচাষ করা হবে। ৫৫ লাখের বেশি মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। রফতানিও একলাফে দ্বিগুণ হবে। পাঁচ বছরে তা বেড়ে হবে এক লাখ কোটি টাকা।'

বন্ধ করুন