বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোভিড আবহে বিজয়াদশমীতে সঙ্ঘ প্রধানের ভাষণে জনসমাগম নিয়ে অনিশ্চয়তা
রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের বিজয়াদশমীর অনুষ্ঠানেভাষণ দেবেন সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবৎ।
রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের বিজয়াদশমীর অনুষ্ঠানেভাষণ দেবেন সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবৎ।

কোভিড আবহে বিজয়াদশমীতে সঙ্ঘ প্রধানের ভাষণে জনসমাগম নিয়ে অনিশ্চয়তা

  • ২৫ অক্টোবর রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের বিজয়াদশমীর অনুষ্ঠানে এবারই প্রথম থাকছেন না কোনও প্রধান অতিথি।

আগামী ২৫ অক্টোবর রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের বিজয়াদশমীর অনুষ্ঠানে এবারই প্রথম থাকছেন না কোনও প্রধান অতিথি। অনুষ্ঠানে ভাষণ দেবেন সঙ্ঘ প্রধান। 

সঙ্ঘের এক শীর্ষস্থানীয় সদস্য জানিয়েছেন, ‘সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবতের ভাষণে জনসমাগমের জন্য প্রশাসনের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। যদি অনুমতি মেলে, তাহলে নাগপুরে সঙ্ঘের প্রধান দফতর সংলগ্ন মাঠে প্রথাগত অনুষ্ঠান পালন করা হবে। না হলে কোনও প্রেক্ষাগৃহে ৫০-১০০ মনুষের সমাগমে ভাষণ অনুষ্ঠিত হবে।’

সঙ্ঘ সূত্রে জানা গিয়েছে, অতিমারী পরিস্থিতিতে অনুষ্ঠানে কোনও প্রধান অতিথিকে এবার আমন্ত্রণনা জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া ও সরকারি মাধ্যমে ভাষণের সরাসরি সম্প্রচার করা হবে বলে জানা গিয়েছে। 

কোভিড সংক্রমণের কারণে বিপুল জনসমাগম এড়াতেই চলতি বছরে অখিল ভারতীয় প্রতিনিধি সভার গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক বাতিল করে সঙ্ঘ। পাশাপাশি, সর্বভারতীয় একজিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠকও দেশের ১২টি কেন্দ্রে আয়োজন করার বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলেছে। 

প্রতি বছর বিজয়াদশমীতে সঙ্ঘ প্রধানের ভাষণে ভবিষ্যৎ পথরেখা নিরূপণ এবং গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে সঙ্ঘের অবস্থান নির্ধারণ হয়। সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের সমর্থনে সঙ্ঘের বার্তাও এই ভাষণের মাধ্যমে প্রচার করা হয়। 

চলতি বছরে বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে এবং অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের সূচনার প্রেক্ষিতে বিজয়াদশমীর অনুষ্ঠান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোভিড আবহে সেই সভায় লোকসমাগমের অভাব দেখা দিলে অনুষ্ঠান গুরুত্ব হারাতে পারে বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ।

বন্ধ করুন