বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সদর দফতরে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে RSS, ডিপিতে গেরুয়া পতাকার জায়গায়…

সদর দফতরে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে RSS, ডিপিতে গেরুয়া পতাকার জায়গায়…

সংঘের সদর দফতরে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের অনুষ্ঠানে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত (Twitter) (HT_PRINT)

মোহন ভাগবত বলেন, আমাদের তেরঙা ত্যাগের প্রতীক। গোটা বিশ্বের মঙ্গলের জন্য় চেষ্টা করতে হবে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের কাছেও নজির তৈরি করতে হবে। আজকের দিনটা আমাদের গর্বের। বহু মানুষের আত্মত্য়াগের জেরে এই স্বাধীনতা এসেছে।

প্রদীপ কুমার মৈত্র

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের প্রধান মোহন ভাগবত নাগপুরে সংঘের প্রধান কার্যালয়ে সোমবার জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন। একেবারে  কড়া পাহারার মধ্যে অনুষ্ঠান হয়। শান্তির বিশেষ বার্তা দেন আরএসএর প্রধান।

মোহন ভাগবত জানিয়েছেন, কারোর করুণায় ভারত স্বাধীনতা পায়নি। বহু সংগ্রামের পরে ভারত স্বাধীন হয়েছে। দেশ ও সমাজ তাঁদের কী দেবে এনিয়ে প্রশ্ন করা উচিত নয়। বরং তাঁরা দেশের জন্য় কী দিচ্ছেন সেটাই ভাবা দরকার।

তিনি বলেন, আমাদের তেরঙা ত্যাগের প্রতীক। গোটা বিশ্বের মঙ্গলের জন্য় চেষ্টা করতে হবে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের কাছেও নজির তৈরি করতে হবে। আজকের দিনটা আমাদের গর্বের। বহু মানুষের আত্মত্য়াগের জেরে এই স্বাধীনতা এসেছে।

তিনি বলেন, দেশপ্রেমের ব্যাপারে বাসিন্দাদের জাগরিত করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে আমাদের সংগঠন। এদিন প্রবীন স্বয়ংসেবক রাজেশ লোয়া উপস্থিত ছিলেন এই অনুষ্ঠানে।

এদিকে ওয়াকিবহাল মহলের মতে, প্রথমদিকে স্বাধীনতা দিবসে ও সাধারণতন্ত্র দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার বিষয়টি মানতে চাইত না আরএসএস। এমনকী তেরঙার জায়গায় গেরুয়া পতাকাকে দেশের জাতীয় পতাকা হিসাবে মান্যতা দেওয়া উচিত বলেও একটা সময় মত পোষন করত আরএসএসের একাংশ। এনিয়ে বিতর্ক কিছু কম হয়নি।

 তবে অটল বিহারী বাজপেয়ী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে এই মনোভাব থেকে বেরিয়ে আসে আরএসএস। তারপর থেকেই ১৫ অগস্ট ও ২৬ জানুয়ারি আরএসএস সদর দফতরে জাতীয় পতাকা তোলা শুরু হয়। এমনকী প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে আরএসএস তাদের ডিপিতে গেরুয়া পতাকা সরিয়ে জাতীয় পতাকার ছবি সংযুক্ত করেছে গত ১২ অগস্ট।

 

বন্ধ করুন