বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > যুদ্ধে রাশিয়া ক্রমশ পিছিয়ে পড়ছে, দাবি ব্রিটেনের
যুদ্ধে রাশিয়া ক্রমশ পিছিয়ে পড়ছে: ব্রিটেন। ছবি ডয়চে ভেলে

যুদ্ধে রাশিয়া ক্রমশ পিছিয়ে পড়ছে, দাবি ব্রিটেনের

  • ব্রিটেনের রিপোর্টে বলা হয়েছে, এতদিন রাশিয়ার সেনাবাহিনীতে স্বেচ্ছায় মানুষ যোগ দিচ্ছিলেন। কিন্তু এখন আর তারা তা চাইছেন না। সে জন্যই পুতিনকে নির্দেশ দিতে হল। রীতিমতো ডিক্রি জারি করতে হল।

সম্প্রতি তিন লাখ মানুষকে সেনা বাহিনীতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। তারই প্রেক্ষিতে ব্রিটেনের এই বক্তব্য। ব্রিটেনের গোয়েন্দাবিভাগ একটি রিপোর্টে বলেছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তিন লাখ মানুষকে সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে বললেও বাস্তবে তা সম্ভব না-ও হতে পারে। কারণ, পুটিনের এই নির্দেশের পর থেকে রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু হয়েছে।

বস্তুত, পুতিনের ঘোষণার পরেই মস্কো এবং সেন্ট পিটার্সবার্গে তীব্র আন্দোলন শুরু হয়। যুদ্ধবিরোধী সেই আন্দোলনে পুলিশ কড়া ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়। এখনও পর্যন্ত ১২০০ জন গ্রেফতার। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এখনও বিক্ষোভ চলছে। এই পরিস্থিতিতে তিন লাখ মানুষকে নতুন করে সেনা বাহিনীতে পাওয়া কঠিন বলেই মনে করছে ব্রিটেন। রাশিয়ার বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনও বিক্ষোভে যোগ দিয়েছে। বিশ্বের কাছে বিক্ষোভের খবর পৌঁছে দিচ্ছে তারা। তাদের মাধ্যমেই একাধিক আন্দোলনের কথা জানা যাচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের রিপোর্টে বলা হয়েছে, এতদিন রাশিয়ার সেনাবাহিনীতে স্বেচ্ছায় মানুষ যোগ দিচ্ছিলেন। কিন্তু এখন আর তারা তা চাইছেন না। সে জন্যই পুটিনকে নির্দেশ দিতে হলো। রীতিমতো ডিক্রি জারি করতে হল। ফলে নতুন মানুষ সেনাবাহিনীতে গেলেও তাতে রাশিয়ার খুব সুবিধা হবে, এমনটা মনে করা হচ্ছে না।

ওয়াশিংটনের থিংকট্যাংক ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অফ ওয়ার একটি পৃথক রিপোর্টে বলেছে, রাশিয়া নতুন সেনা নিয়োগ করলেও শীতকালে ইউক্রেনের দখল করা জমি রক্ষা করতে পারবে বলে তারা মনে করছে না। তাদের বক্তব্য, নতুন সেনারা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নয়। তারা ওই আবহাওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে লড়াই চালাতে পারবে না।

এদিকে বৃহস্পতিবার তার দৈনিক বক্তৃতায় ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়ার মানুষের উচিত এবার প্রতিবাদ করা। এখনো পর্যন্ত ৫৫ হাজার রাশিয়ার সেনার মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছেন জেলেনস্কি। আরো মানুষ যোগ দিলে আরও মৃত্যু হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। জেলেনস্কি বলেছেন, চুপ করে থাকাও একরকম সমর্থন করা। রাশিয়ার মানুষের উচিত রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সরব হওয়া। যুদ্ধের বিরুদ্ধে ঐক্যমত্য গড়ে তোলা।

(বিশেষ দ্রষ্টব্য: প্রতিবেদনটি ডয়চে ভেলে থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রতিবেদনই তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার কোনও প্রতিনিধি এই প্রতিবেদন লেখেননি।)

বন্ধ করুন