বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ২৬টি ভুয়ো মাদক মামলায় নির্দোষদের ফাঁসিয়েছেন সমীর, ট্যাপ করেছেন ফোন: নবাব মালিক
দিল্লিতে সমীর ওয়াংখেড়ে (ছবি: পিটিআই) (PTI)
দিল্লিতে সমীর ওয়াংখেড়ে (ছবি: পিটিআই) (PTI)

২৬টি ভুয়ো মাদক মামলায় নির্দোষদের ফাঁসিয়েছেন সমীর, ট্যাপ করেছেন ফোন: নবাব মালিক

  • এনসিপি নেতা নবাব মালিক চার পৃষ্ঠার চিঠি দেখিয়ে দাবি করেন যে তাতে ২৬টি মামলার তালিকা রয়েছে যেখানে লোকেদের জাল মাদক মামলায় ফাঁসানো হয়েছে।

এনসিপি নেতা এবং মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নবাব মালিক নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে একটি নতুন চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন। মালিকের দাবি, কেন্দ্রীয় সংস্থারই একজন কর্মচারী একটি চিঠি লিখে অভিযোগ করেছেন যে সমীর কীভাবে ২৬টি ভুয়ো মাদকের মামলায় নির্দোষ লোককে ফাঁসিয়েছেন। তিনি আরও অভিযোগ করেছেন যে তাদের ফাঁসাতে মানুষের ফোন ট্যাপ করার জন্য দুই জন লোককে নিযুক্ত করেছিলেন সমীর।

নবাব মালিকের টুইট করা চিঠির অনুলিপিতে ওয়াংখেড়ে এবং তাঁর দলের সদস্যদের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করা হয়েছে। মালিক দাবি করেন, চিঠির বিষয়বস্তু অত্যন্ত গুরুতর প্রকৃতির এবং পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত প্রয়োজন। তিনি বলেন, 'যেহেতু এনসিবি ইতিমধ্যেই সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে, তাই আমি এনসিবির ডিজিকে অনুরোধ করব যাতে এই চিঠিটিও তাদের তদন্তের অংশ হিসেবে গ্রহণ করা হোক।'

মালিক চার পৃষ্ঠার চিঠি দেখিয়ে দাবি করেন যে তাতে ২৬টি মামলার তালিকা রয়েছে যেখানে লোকেদের জাল মাদক মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। চিঠিটি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এনসিবি-র এক আধিকারিক লিখেছেন বলে দাবি করা হয়। মালিক বলেন যে তিনি এনসিবি-কে চিঠি পাঠিয়েছেন যাতে ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে তাদের ভিজিল্যান্স বিভাগ তদন্তের শুরু করে। এজেন্সির ডিজিকে লেখা চিঠিতে পুরোবিষয়বস্তু খতিয়ে দেখতে অনুরোধ করেছে এনসিপি।

নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল মুথা অশোক জৈন দাবি করেন যে এই চিঠিটি কেবল সোশ্যাল মিডিয়াতেই ভাইরাল হয়েছে এবং সংস্থা এমন কোনও চিঠি এখনও পায়নি। তিনি যোগ করেন যে এনসিবি যদি এই চিঠিটি হাতে পায় তাহলে এর প্রেক্ষিতে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বন্ধ করুন