বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Saturn Moon Titan: আছে নদী থেকে সমুদ্র, মিলল পৃথিবীর ‘কার্বন কপি’! কোন রহস্য লুকিয়ে শনির চাঁদে?
শনি গ্রহের সবচেয়ে বড় চাঁদ টাইটান (ছবি - টুইটার)
শনি গ্রহের সবচেয়ে বড় চাঁদ টাইটান (ছবি - টুইটার)

Saturn Moon Titan: আছে নদী থেকে সমুদ্র, মিলল পৃথিবীর ‘কার্বন কপি’! কোন রহস্য লুকিয়ে শনির চাঁদে?

  • Saturn Moon Titan: পৃথিবীর মতো দেখালেও টাইটানে অনেক কিছুই আলাদা আমাদের চেনা গ্রহের থেকে। নদী, সমুদ্র, লেক থাকলেও তাতে জল নেই। টাইটানের নদীতে বয়ে চলে তরল মিথেন।

শনি গ্রহকে প্রদক্ষিণ করে মোট ৮২টি চাঁদ বা উপগ্রহ। যেন শনি নিজেই একটি সৌর জগৎ। এহেন শনিরই একটি চাঁদে মিলল নদী, লেক, সমুদ্রের চিহ্ন। শুধু তাই নয়, পৃথিবীর মতো ঘন বায়ুমণ্ডলের আবরণ মুড়ে রেখেছে শনির এই চাঁদটিকে। মহাকাশ থেকে দেখতে কতকটা নীল রঙেরই দেখায় এই চাঁদকেও। জানা গিয়েছে, শনির সবচেয়ে বড় চাঁদ ‘টাইটান’-এ ক্রমেই ভূখণ্ডও তৈরি হচ্ছে।

তবে মহাকাশ দেখতে পৃথিবীর মতো দেখালেও টাইটানে অনেক কিছুই আলাদা আমাদের চেনা গ্রহের থেকে। নদী, সমুদ্র, লেক থাকলেও তাতে জল নেই। টাইটানের নদীতে বয়ে চলে তরল মিথেন। টাইটানের বরফের পৃষ্ঠ এবং বাতাসে যে নাইট্রোজেন আছে তা হাইড্রোকার্বন বালির টিলা তৈরি করে বলে জানতে পেরেছেন গবেষকরা। স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতাত্ত্বিক ম্যাথিউ ল্যাপোত্রের নেতৃত্বে গবেষকদের একটি দল প্রকাশ করেছে যে কীভাবে টাইটানের এই টিলা, সমভূমি এবং গোলকধাঁধা ভূখণ্ড গঠিত হয়। জিওফিজিক্যাল রিসার্চ লেটারস জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণা।

আরও পড়ুন: ফের অশান্ত রাজস্থান, ইদে পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ যোধপুরে, জখম ৪ পুলিশ

গবেষণায় দেখা গিয়েছে কীভাবে ঋতু চক্র চাঁদের পৃষ্ঠের উপর ধলোকণাকে চালিত করে। শনির এই চাঁদে পৃথিবীর মতো ঋতু চক্রের বৈশিষ্ট্য থাকায় বিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন ধরে এই রহস্যময় জগৎ নিয়ে আগ্রহী। এই বিষয়ে গবেষক দলের প্রধান ম্যাথিউ ল্যাপোত্রে বলেন, ‘আমাদের মডেল একটি ঐক্যবদ্ধ কাঠামো যোগ করে। এর মাধ্যমে আমরা বুঝতে পারব যে কীভাবে এই চাঁদের পরিবেশ একসাথে কাজ করে। এর থেকে এটাও বোঝা যাবে যে এখানে জীবনের জন্য সম্ভাবনা কতটা।’

প্রসঙ্গত, পৃথিবীর টিলাগুলি সিলিকেট শিলা এবং খনিজের মাধ্যমে গঠিত হয় যা সময়ের সাথে সাথে পলি দানায় ক্ষয়ে যায়। পরে চাপ, ভূগর্ভস্থ জল এবং কখনও কখনও তাপের ফলে এই পলি পাথরে পরিণত হয়। বিজ্ঞানীদের দাবি, টাইটানেও প্রায় একই প্রক্রিয়াতে ভূখণ্ড গঠিত হয়। গবেষকদের আরও দাবি, টাইটানের পলল কঠিন জৈব যৌগের মাধ্যমে গঠিত হয়ে থাকতে পারে। তবে এতসবের পরও টাইটানে ধুলোর টিলা রয়েছে সব জায়গায়। যা ঋতুর সাথে বদলে যায়। বিজ্ঞানীরা এই নিয়ে ধন্দে, যে এতবছরেও এই টিলাগুলি শক্ত ভূখণ্ডে পরিণত হয়নি কেন। এই প্রশ্নের জবাব মিলেছে আমাদের পৃথিবীতেই। গবেষণায় বলা হয় ‘ওয়েড’ নামক এক ধরনের ছোট, গোলাকার ধুলোকণা প্রায়শই বাহামার কাছাকাছি অঞ্চলে সমুদ্রের অগভীর মেলে। এই পললগুলি ক্যালসিয়াম কার্বনেট ও জলের রাসায়নিক প্রতিক্রিয়াতে তৈরি হয়। কোয়ার্টজের চারপাশে স্তরগুলিতে এই কণা সংযুক্ত হয়। কতকটা এভাবেই টাইটানের কণাও ছোট থাকে এবং তা ঋতু চক্রের সঙ্গে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা গিয়ে নতুন নতুন টিলা তৈরি হয়।

বন্ধ করুন