বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gratuity: বেসরকারি স্কুল শিক্ষকদের গ্র্যাচুয়িটি নিয়ে খুশির খবর,সময়সীমা দিল আদালত
সোমবার সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল বেসরকারি স্কুলে যে শিক্ষকরা কর্মরত তাঁরাও কর্মচারী। তাঁরা গ্র্যাচুয়িটি পাওয়ার যোগ্য। প্রতীকী ছবি : পিটিআই (PTI)

Gratuity: বেসরকারি স্কুল শিক্ষকদের গ্র্যাচুয়িটি নিয়ে খুশির খবর,সময়সীমা দিল আদালত

  • ৬ মাসের মধ্যে বকেয়া গ্র্যাচুয়িটি মিটিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। সেই দাবি না মানা হলে শিক্ষকরা নির্দিষ্ট ফোরামে যেতে পারেন বলেও আদালতের তরফে জানানো হয়েছে। তবে এর জেরে হাজার হাজার বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরা উপকৃত হতে পারেন।

আব্রাহাম থমাস

সোমবার সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল বেসরকারি স্কুলে যে শিক্ষকরা কর্মরত তাঁরাও কর্মচারী। তাঁরা গ্র্যাচুয়িটি পাওয়ার যোগ্য। পেমেন্ট অফ গ্র্যাচুয়িটি অ্যাক্ট অনুসারে ৫ বছরের কম কাজ করেননি এমন কর্মচারী বা তার পরিবার অবসর, ইস্তফা, মৃত্যু অথবা দুর্ঘটনায় অক্ষম হওয়ার পরে গ্র্যাচুয়িটি পাওয়ার যোগ্য।

এদিকে একাধিক নিম্ন আদালতে পরাজিত হওয়ার পরে বেসরকারি স্কুলগুলি ২০০৯ সালের একটি সংশোধনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিল। তাদের দাবি ছিল যাঁরা পড়ুয়াদের শিক্ষাদান করছেন তাঁরা PAG অনুসারে এমপ্লয়ি নন। কারণ তাঁরা কোনও দক্ষতা, অদক্ষতা. অর্ধ দক্ষতা, প্রশাসনিক, টেকনিকাল, ক্লারিকাল কাজ করছেন না।

তবে স্কুলগুলির এই যুক্তিকে নাকচ করে বিচারপতি সঞ্জীব খান্না ও বেলা এম ত্রিবেদী জানিয়েছেন, আইনের ওই সংশোধন শিক্ষকদের বঞ্চনা থেকে মুক্তি দিয়েছে। Statute'র একটি গলদের কারণে শিক্ষকদের বকেয়া আটকে রাখা যায় না।

এদিকে স্কুলগুলির তরফে দাবি করা হয়েছিল শিক্ষকদের গ্র্যাচুয়িটি দেওয়ার জন্য তাদের কাছে আর্থিক কোনও পথ নেই। তবে আদালতের তরফে বলা হয়েছে এই গ্র্যাচুয়িটি কোনও বিশেষ পাওনা নয়, এটা নূন্যতম পাওনার বিষয়। স্কুলগুলি গ্র্যাচুয়িটি দেওয়ার অক্ষমতাকেও মানতে চাননি বিচারপতিদের বেঞ্চ।সমস্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এই আইন মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ৬ মাসের মধ্যে বকেয়া গ্র্যাচুয়িটি মিটিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। সেই দাবি না মানা হলে শিক্ষকরা নির্দিষ্ট ফোরামে যেতে পারেন বলেও আদালতের তরফে জানানো হয়েছে। তবে এর জেরে হাজার হাজার বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরা উপকৃত হতে পারেন।

বন্ধ করুন