বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মানসিক রোগীদের টিকাকরণ, পুনর্বাসনের তথ্যের জন্য এক মাসের সময়সীমা বেঁধে দিল আদালত
 personal protective equipment (PPE) পরছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী /Bloomberg (Bloomberg)
 personal protective equipment (PPE) পরছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী /Bloomberg (Bloomberg)

মানসিক রোগীদের টিকাকরণ, পুনর্বাসনের তথ্যের জন্য এক মাসের সময়সীমা বেঁধে দিল আদালত

  • অ্যাডভোকেট গৌরব কুমার বনশল সুপ্রিম কোর্টের কাছে একটি পিটিশন করেছিলেন।

 মেন্টাল হেলথ কেয়ার সেন্টারে বসবাসকারী সমস্ত মানসিক রোগী ও কর্মীদের এক মাসের মধ্যে টিকাকরণ সম্পূর্ণ করার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের জন্য এই সময়সীমা নির্ধারন করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সুস্থ হয়ে যাওয়া মানসিক রোগীদের জন্য পুনর্বাসনকেন্দ্র তৈরির ব্যাপারে তথ্য দাখিলের জন্যও একমাসের সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত অ্যাডভোকেট গৌরব কুমার বনশল সুপ্রিম কোর্টের কাছে একটি পিটিশন করেছিলেন। যেখানে উল্লেখ করা হয়েছিল ২০১৭ সালের একটি রায়কে লঙ্ঘন করছে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। বিভিন্ন সরকারি মেন্টাল হাসপাতাল থেকে ভালো হয়ে যাওয়ার পরেও যারা অতিরিক্ত সময়ের জন্য ওই সেন্টারগুলিতে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন তাদের জন্য হাফ ওয়ে হোম তৈরির নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। কিন্তু সেই নির্দেশ মানা হয়নি বলে অভিযোগ। এদিকে গত ৬ই জুলাই বিভিন্ন মানসিক হাসপাতালের জন্য টিকাকরণের পরিকল্পনা করার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। 

জাস্টিস ধনঞ্জয় ওয়াই চন্দ্রচূড়, বিক্রম নাথ ও হিমা কোহলির ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, বিভিন্ন মেন্টাল হেল্থ ইনস্টিটিউটের আবাসিক ও কর্মীদের টিকাকরণের জন্য একেবারে সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের জন্য এই নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। নির্দেশ দেওয়ার পর থেকে এক মাসের বেশি সময় দেওয়া হবে না। কতজনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে, কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সেটা ১৫ই অক্টোবর অথবা তার আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের মাধ্যমে আদালতকে জানাতে হবে। Half way home তৈরি প্রসঙ্গে আদালতের পর্যবেক্ষণ এব্যাপারে তো কোনও প্রকৃত পদক্ষেপ দেখছি না। কিছু রাজ্য কেবলমাত্র টাইমলাইনগুলি ঠিক করেছে।

 

বন্ধ করুন