বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিচারক খুন? এক সপ্তাহের মধ্যে পুলিশের কাছে তদন্ত রিপোর্ট চাইল সুপ্রিম কোর্ট
সুপ্রিম কোর্ট (ফাইল ছবি)
সুপ্রিম কোর্ট (ফাইল ছবি)

বিচারক খুন? এক সপ্তাহের মধ্যে পুলিশের কাছে তদন্ত রিপোর্ট চাইল সুপ্রিম কোর্ট

  • ধানবাদের অতিরিক্ত জেলা বিচারক হিসাবে কর্মরত ছিলেন উত্তম আনন্দ। বুধবার প্রাতঃভ্রমণের সময় তাঁকে একটি গাড়ি ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। সেটি খুন নাকি দুর্ঘটনা তা নিয়ে রহস্য দানা বেঁধেছে।

ঝাড়খণ্ডে এক বিচারবিভাগীয় আধিকারিকের মৃত্যুর ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা গ্রহণ করল সুপ্রিম কোর্ট। ঝাড়খণ্ডের মুখ্যসচিব ও ডিরেক্টর জেনারেল অফ পুলিশের কাছ থেকেও তদন্তের গতিপ্রকৃতি সম্পর্কে এক সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট চাইল আদালত। প্রসঙ্গত ধানবাদের অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট অ্য়ান্ড সেশন জাজ হিসাবে কর্মরত ছিলেন উত্তম আনন্দ। প্রাতঃভ্রমণের সময় তাঁকে একটি গাড়ি ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বলে অভিযোগ। প্রধান বিচারপতি(CJI) এনভি রামন ও জাস্টিস সুর্য্যকান্ত এই ঘটনার স্বতপ্রণোদিত মামলা গ্রহণ করেছেন। 

এই মামলাটিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘Re: Safeguarding Courts and protecting Judges(Death of ASJ Dhanbad)’। প্রসঙ্গত এর আগেই বৃহস্পতিবার ধানবাদ হাইকোর্টও এই ঘটনার স্বতপ্রণোদিত মামলা গ্রহণ করেছেন। পাশাপাশি গোটা ঘটনার তদন্ত সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর জন্যও হাইকোর্ট পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে। 

এদিকে পুলিশ সূত্রে খবর,  ঘটনাস্থল থেকে প্রাপ্ত সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে। ১৪জনের একটি স্পেশাল ইনভেশটিগেশন টিমও তৈরি হয়েছে। এখনও পর্যন্ত দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যে অটো রিক্সাটি ধাক্কা দিয়েছিল বলে বোঝা যাচ্ছে তাতে এই দুজন ছিল। ধানবাদ থেকে অটোটিকে চুরি করা হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। 

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বিকাশ সিং জানিয়েছেন. বিচার ব্যবস্থার স্বাধীনতার উপর এটি বড় আঘাত। বিচারবিভাগের স্বাধীনতা বজায় রাখার জন্য বিচারকদের নিরাপদে থাকা খুব দরকার। একজন এডিজেকে এভাবে হত্যা করা যায় না। স্থানীয় পুলিশ যদি না পারে তবে সিবিআই এই ঘটনার তদন্ত করুক।

 

বন্ধ করুন