মানবাধিকার কমিশনের কোপে পড়েছেন পাক ধর্ম প্রচারক মৌলানা তারিক জামিল।
মানবাধিকার কমিশনের কোপে পড়েছেন পাক ধর্ম প্রচারক মৌলানা তারিক জামিল।

স্বল্পবসনাদের কারণেই করোনা সংক্রমণের প্রকোপ, দাবি পাকিস্তানের মৌলানার

  • দেশের সম্মানকে ছিন্নভিন্ন কে করেছে? কে আমার দেশের মেয়েদের নাচাচ্ছে? কে তাদের স্বল্পবসনা হতে বলছে? এই পাপের জন্য কাকে দোষ দেব?

স্বল্পবসনার রমরমাতেই প্রকোপ বেড়েছে Covid-19 এর। মিথ্যাচার, প্রতারণা ও অসাধুতার ফলে আজ জীবাণু সংক্রমণে জর্জরিত পাকিস্তান। এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করে মানবাধিকার কমিশনের কোপে পড়েছেন পাক ধর্ম প্রচারক মৌলানা তারিক জামিল।

সম্প্রপতি পাকিস্তানের এক টিভি চ্যানেলে করোনা ত্রাণ সংগ্রহমূলক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের উপস্থিতিতে এই মন্তব্য করেন জামিল। প্রায় ঘণ্টাখানেকের ভাষণে তিনি বলেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ ঈশ্বরের সামনে নতজানু হওয়া।

এর পরেই দেশে করোনা সংক্রমণের জন্য মিথ্যাচার, প্রতারণার সাহায্যে আয় ও বিশ্বাসঘাতকতাকে তিনি কাঠগড়ায় তোলেন। তাঁর ক্ষোভের থেকে রেহাই পায়নি পাকিস্তানের আধুনিক জীবনযাপন ও বিনোদনের উপাদানও।

অনুষ্ঠানে মৌলানা জামিল বলেন, ‘আমার দেশের সম্মানকে ছিন্নভিন্ন কে করেছে? কে আমার দেশের মেয়েদের নাচাচ্ছে? কে তাদের স্বল্পবসনা হতে বলছে? এই পাপের জন্য কাকে দোষ দেব?’

তিনি আরও বলেন, ‘নিজ সম্প্রদায়কে বোঝাতে পারিনি বলে আল্লার কাছে ক্ষমা চাইছি। যখন এক মুসলিমের মেয়ে অভব্য পথে চলে এবং সমাজের তরুণরা উগ্রতা বেছে নেয়..। আল্লার ক্রোধ তখন এ ভাবেই গোটা সমাজের উপর আছড়ে পড়ে।’

মৌলানার এই উক্তির জেরে তাঁর তীব্র সমালোচনা করেছে পাকিস্তানের মানবাধিকার কমিশন। কমিশনের তরফে এক বিবৃতিতেস বলা হয়েছে, ‘Covid-19 এর সঙ্গে মহিলাদের আব্রুর সম্পর্ক টেনে সম্প্রতি তাঁর উক্তিতে হতবাক পাকিস্তানের মানবাধিকার কমিশন। টেলিভিশনে সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে এসে নারীকে সরাসরি ভোগ্যপণ্যের সঙ্গে তুলনা করার এমন উদাহরণ নজিরবিহীন। এর থেকেই সমাজে অন্তর্নিহিত নারী বিদ্বেষ প্রকট হয়ে উঠেছে।’

মৌলানা জামিলের কঠোর সমালোচনা করে নিবন্ধ প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের অগ্রণী সংবাদপত্র ‘দ্য ডন’।

বন্ধ করুন