বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আগে সন্তানদের সীমান্তে পাঠান, তারপর ইমরানকে 'বড়দা' বলবেন, গম্ভীরের নিশানায় সিধু
নভজোৎ সিং সিধুকে অভ্যর্থনা পাকিস্তানে (ANI Photo) (ANI)
নভজোৎ সিং সিধুকে অভ্যর্থনা পাকিস্তানে (ANI Photo) (ANI)

আগে সন্তানদের সীমান্তে পাঠান, তারপর ইমরানকে 'বড়দা' বলবেন, গম্ভীরের নিশানায় সিধু

  • বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেন, ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে হিন্দুত্বকে একসারিতে বসিয়েছে কংগ্রেস, কিন্তু খানের মধ্য়ে ভাইজানকে খুঁজে পেয়েছে।

তোমার ছেলে অথবা মেয়েকে আগে সীমান্তে পাঠান। তারপর ওই সন্ত্রাসবাদীদের রাজ্যের প্রধানকে বড় ভাই বলবেন। এভাবে ক্রিকেটার তথা রাজনীতিবিদ গৌতম গম্ভীর টুইট করে সরাসরি নিশানা করলেন পঞ্জাবের কংগ্রেস নেতা নভজোৎ সিং সিধুকে। এর সঙ্গেই তিনি হ্যাশট্যাগ দিয়েছেন, মেরুদণ্ডহীন। আসলে পাকিস্তানের গুরুদোয়ারা সাহিবে গিয়ে নানা কথা জানিয়েছিলেন নভজোৎ সিং সিধু। সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর সেখানে গিয়ে তিনি জানিয়ছিলেন, 'ইমরান খান আমার বড় দাদা। আমি অত্যন্ত সম্মানিত। তিনি আমাকে অনেক ভালোবাসা দিয়েছেন। ইমরান খান এক পা বাড়িয়েছেন, ভারত দু পা বাড়িয়েছে। আমি মোদী সাহেব ও খান সাবেবকে অনুরোধ করছি দরজা খুলে দিন। প্রায় ২৭৫,০০০ ডলারের ব্যবসার সম্ভাবনা রয়েছে। '

 

এদিকে সিধুর এই মন্তব্যকে ঘিরে ব্যাপক শোরগোল পড়েছে। বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেন, ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে হিন্দুত্বকে একসারিতে বসিয়েছে কংগ্রেস, কিন্তু খানের মধ্য়ে ভাইজানকে খুঁজে পেয়েছে। আকালি দলের নেতা দলজিৎ সিং চিমার দাবি, সিধুর কথার কোনও যুক্তি নেই। সবটাই রাজনৈতিক চমক। কংগ্রেস নেতা মণীষ তিওয়ারির দাবি, ইমরান খান কারোর বড় দাদা হতেই পারেন। কিন্ত সে আবার ভারতে নিয়মিত মাদক পাঠায়, জঙ্গি পাঠায়। আমরা কি পুঞ্চ সেক্টরে শহিদদের কথা ভুলে যাব? তবে সিধুর পাশে থেকে পঞ্জাবের মন্ত্রী পরগত সিংয়ের দাবি, সিধু পাকিস্তানে গেলেই তাঁকে দেশদ্রোহী বলা হয়। আর মোদী গেলে বলা হয় দেশপ্রেমী। 

 

বন্ধ করুন