বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কোভিড বিধি মেনেই পুরো সময়েই বসবে সংসদের অধিবেশন, রবিবার সর্বদল বৈঠক
সংসদ ভবন, ফাইল ছবি (HT_PRINT)
সংসদ ভবন, ফাইল ছবি (HT_PRINT)

কোভিড বিধি মেনেই পুরো সময়েই বসবে সংসদের অধিবেশন, রবিবার সর্বদল বৈঠক

  • লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা জানিয়েছেন, ১৯ জুলাই থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত লোকসভার অধিবেশন চলবে।

‌কোভিড বিধি মেনেই সংসদের অধিবেশন পুরো সময়ের জন্য করার পথে হাঁটল কেন্দ্রীয় সরকার। আগামী সপ্তাহ থেকেই সংসদের অধিবেশন শুরু হওয়ার কথা। সমস্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে যাতে অধিবেশনের কাজ সুষ্ঠুভাবে করা যায়, সেজন্য তৎপর হয়েছে সরকার। তবে এবারের অধিবেশনে সেন্ট্রাল হলে প্রাক্তন সাংসদদের প্রবেশের ওপর যেমন নিষেধাজ্ঞা জারি থাকছে, তেমনি সংসদভবনে অতিথিদের আমন্ত্রণের ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি থাকছে।

লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা জানিয়েছেন, ১৯ জুলাই থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত লোকসভার অধিবেশন চলবে। ৫৪০ জন লোকসভার সাংসদদের মধ্যে ৫৮ শতাংশের অর্থাৎ ৩১১ জনের করোনার দুটি ডোজই নেওয়া হয়ে গিয়েছে। বাকি যারা আছেন, তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগ জনেরই ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়া হয়ে গিয়েছে। যাদের এখনও একটি ডোজও টিকা নেওয়া হয়নি, তাঁরা চলতি সপ্তাহের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তাঁদের আরটি–পিসিআর টেস্ট বাকি আছে। এদিন লোকসভার অধ্যক্ষ জানিয়েছেন, এবারে সাংসদরা হাউসে তাঁদের নিজের নিজের আসনে বসতে পারবেন। কিছু সাংসদের অবশ্য গ্যালারিতে বসার বন্দোবস্ত করা হয়েছে। তিনি জানান, সাংসদদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে সব সাংসদদের ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে, তাঁদের আর এবারে আরটি–পিসিআর পরীক্ষার প্রয়োজন নেই। একইসঙ্গে তিনি জানান, যতদিন এই অধিবেশন চলবে, ততদিন অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা, স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র চালু থাকবে।

উল্লেখ্য, অধিবেশন শুরুর আগের দিন অর্থাৎ ১৮ জুলাই সর্বদল বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। সকাল এগারোটা থেকে হবে ওই বৈঠক। ওই একই দিনে বিজেপির সংসদীয় দলের একটি বৈঠক হওয়ার কথা আছে। অন্যদিকে রবিবার এনডিএ-র বিভিন্ন দলের ফ্লোর ম্যানেজাররাও বৈঠক করবেন রণকৌশল ঝালিয়ে নেওয়ার জন্য। 

 

নিয়ম মেনেই এবারের অধিবেশনে জিরো আওয়ার ও প্রশ্নোত্তর পর্ব থাকছে। বিরোধী দলের এক নেতা জানিয়েছেন, অধিবেশন শুরুর আগে সব বিরোধী দলের নেতাদের নিয়ে একটি আলোচনার আয়োজন করা হয়। বিরোধীদের অনেকের অভিযোগ, গত দুই অধিবেশনে কেন্দ্র বিতর্কের জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা ঠিকভাবে করতে পারেনি। অনেক ক্ষেত্রে সময়ের অভাবে ঠিকভাবে আলোচনা করা যায়নি। জানা যাচ্ছে, এবারে সরকারের কাছে প্রধান্য পাবে ৪টি অর্ডিন্যান্স যা আইন হিসাবে পাশ করাতে হবে। এছাড়াও বেশ কিছু বিল পাশ করানোর অপেক্ষায় রয়েছে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল, দ্য এয়ারপোর্ট ইকোনমিক্স রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (‌সংশোধনী)‌ বিল, দ্য জুভেনাইল জাস্টিস (‌কেয়ার অ্যান্ড প্রটেকশন অফ চিলড্রেন)‌ সংশোধনী বিল, দ্য অ্যাসিসটেড রিপ্রোডাকটিভ টেকনোলজি (‌রেগুলেশন)‌ বিল।

বন্ধ করুন