বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Snakebite Death: সাপের কামড়ে মৃত দাদার শেষকৃত্যের জন্য ফেরেন গ্রামে, সাপের কামড়ে মৃত্যু যুবকেরও
সাপের কামড়ে মৃত দাদার শেষকৃত্যের জন্য ফেরেন গ্রামে, সাপের কামড়ে মৃত্যু যুবকেরও। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে রয়টার্স)

Snakebite Death: সাপের কামড়ে মৃত দাদার শেষকৃত্যের জন্য ফেরেন গ্রামে, সাপের কামড়ে মৃত্যু যুবকেরও

  • সাপের কামড়ে ভবানীপুর গ্রামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। দাদার শেষকৃত্যে যোগ দিতে গ্রামে ফিরেছিলেন এক যুবক। ঘুমানোর সময় তাঁকেও সাপে কামড়ায়। মৃত্যু হয়েছে ওই যুবকের। এক যুবক হাসপাতালে ভরতি আছেন।

সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছিল দাদার। তাঁর শেষকৃত্যের জন্য গ্রামে এসেছিলেন এক যুবক। সেখানে সাপের কামড়ে ওই যুবকেরও মৃত্যু হল। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের ভবানীপুর গ্রামের।

সংবাদসংস্থা পিটিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত মঙ্গলবার সাপের কামড়ে অরবিন্দ মিশ্র (৩৮) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। সেজন্য লুধিয়ানা থেকে গ্রামে ফিরেছিলেন ভাই গোবিন্দ (২২)। সঙ্গে চন্দ্রশেখর পান্ডে নামে এক যুবক এসেছিলেন। 

ভবানীপুরের সার্কেল অফিসার রাধারমন সিং জানিয়েছেন, বুধবার অরবিন্দের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। তিনি বলেন, 'গোবিন্দ যখন ঘুমোচ্ছিলেন, তখন তাঁকে সাপে কামড়ায়। তাঁর এক আত্মীয় চন্দ্রশেখর একই ঘরে ছিলেন। তাঁকেও সাপে কামড়েছে। দ্রুত তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক।' অন্যদিকে, গোবিন্দকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন: Snake at Metro Carshed: সন্ধ্যা নামতেই মেট্রো কারশেডে সাপের আতঙ্ক, সাপুড়ে খুঁজছে রেল

গোবিন্দের মৃত্যুর পর ভবানীপুর গ্রামে আসেন উচ্চপদস্থ স্বাস্থ্য আধিকারিক এবং জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা। স্থানীয় বিধায়ক কৈলাসনাথ শুক্লা মৃতের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন। তাঁদের সাহায্যের আশ্বাস দেন। সেইসঙ্গে ভবিষ্যতে যাতে এরকম ঘটনা এড়ানো যায়, তা নিশ্চিত করার জন্য স্থানীয় আধিকারিকদের নির্দেশ দেন বিধায়ক।

সাপ তাড়ানোর উপায়

  • কার্বলিক অ্যাসিড: সাপ তাড়ানোর মোক্ষম অস্ত্র হল কার্বলিক অ্যাসিড। বাড়ির আশপাশে যদি কার্বলিক অ্যাসিড ছড়িয়ে নিতে পারেন, তাহলে সাপের আনাগোনা কমতে পারে। এছাড়াও বলা হয় অন্ধকারে পায়ের আওয়াজ করে চললে এই সাপের আনাগোনা কমতে থাকে।

আরও পড়ুন: Snake bite: ঠাকুর ঘর মুছতে গিয়েই বিপদ! হাতে ছোবল বসিয়ে দিল সাপ! মর্মান্তিক পরিণতি শিশুর

  • সালফার গুঁড়ো: কার্বলিক অ্যাসিড যদি হাতের কাছে না পান, তাহলে সাপের আনাগোনার ওই জায়গায় ছড়িয়ে দিন সালফারের গুঁড়ো। এতেই চলে যাবে সাপ। সালফারের গুঁড়ো সাপের চামড়ায় জ্বালা ধরিয়ে দেয়। ফলে সাপ সেদিকে খুব একটা এগিয়ে যায় না।
  • রসুন: বাড়িতে যদি কার্বলিক অ্যাসিড না থাকে, তাহলে বাড়ির আশপাশে ছড়িয়ে দিতে পারেন থেঁতো করা রসুন। রসুন বেঁটে নিয়ে তার সঙ্গে সরষের তেল মিশিয়ে নিন। তা রেখে দিন একদিন। সেই মিশ্রণ বাড়ির চারপাশে ছিটিয়ে দিন।
  • ন্যাপথলিন: হাতের কাছে কার্বলিক অ্যাসিড না পেলও ন্যাপথলিন গুঁড়ো করে দিতে পারেন। এতে সাপ দূরে চলে যায়। এছাড়াও বাড়ির আশপাশে যদি জলা জায়গা থাকে, বা অনেকদিন কোথাও জল জমে থাকে, সেখানে একটু ভিনিগার ছড়িয়ে দিতে পারেন। তাহলে সাপ সেই জায়গায় লুকিয়ে থাকলে সরে যাবে।
  • লেবু এবং গোলমরিচ: গোলমরিচ বা লঙ্কার গুঁড়ো এবং লেবুর রস মিশিয়ে বাড়ির আশপাশে ছড়িয়ে দিতে পারেন। তার ফলে সাপ সেই রাস্তা ধরে আসে না বলে দাবি বহু বিশেষজ্ঞের। এছাড়াও বাড়ির পচে যাওয়া পেঁয়াজ বেটে তা আশপাশে ছড়িয়ে দিতে পারেন। সতেজ পেঁয়াজও এক্ষেত্রে খুবই কার্যকরী।

বন্ধ করুন