বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নাতিকে চড় মারার কথা শুনে বাবার মাথায় সজোরে লাঠির আঘাত ছেলের, মৃত্যু বাবার
ছেলের লাঠির আঘাতে মৃত্যু বাবার (প্রতীকী ছবি)
ছেলের লাঠির আঘাতে মৃত্যু বাবার (প্রতীকী ছবি)

নাতিকে চড় মারার কথা শুনে বাবার মাথায় সজোরে লাঠির আঘাত ছেলের, মৃত্যু বাবার

  • চিৎকার চেঁচামেচি শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। এদিকে প্রতিবেশীদের তাঁরা জানান এটা বাবা ও ছেলের নিজেদের মধ্যে ব্যাপার। এনিয়ে যেন তারা নাক না গলায়।

নাতিকে চড় মারার অভিযোগ উঠেছিল দাদুর বিরুদ্ধে। আর তাতেই অগ্নিশর্মা হয়ে বাবার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন ছেলে। অভিযোগ তাতেই মৃত্যু হয় ৫০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির। রাজস্থানের কুশলগড় এলাকার ঘটনা। পরিবার সূত্রে খবর, রবিবার রাতে ৮ বছরের নাতি দাদুকে নানাভাবে জ্বালাতন করছিল। এতে বিরক্ত হয়ে নাতিকে একটা চড় মারেন দাদু। এদিকে দাদুর চড় খেয়ে অভিমান হয়েছিল নাতির। এরপর প্রতিবেশীদেরকে সে জানায় বাবাকে খবর দিতে। তার বাবা গুজরাটে শ্রমিকের কাজ করেন। এমনটাই জানিয়েছেন  কুশলগড়ের সার্কেল ইনসপেক্টর প্রদীপ কুমার। 

এদিকে পুলিশ সূত্রে খবর, ছেলের কাছে খবর পেয়ে বাবা জয়ন্তীলাল শনিবার আহমেদাবাদ থেকে ফিরে আসেন। রবিবার রাতে জয়ন্তীলালের সঙ্গে তার বাবার তর্কাতর্কি লেগে যায়। এরপর একটি লাঠি দিয়ে বাবার মাথায় মেরে দেয় জয়ন্তীলাল। অভিযোগ এমনটাই। চিৎকার চেঁচামেচি শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। এদিকে প্রতিবেশীদের তাঁরা জানান এটা বাবা ও ছেলের নিজেদের মধ্যে ব্যাপার। এনিয়ে যেন তারা নাক না গলায়।

পুলিশের দাবি, সম্ভবত ওই ব্যক্তির মাথার ভেতরে জোরে আঘাত লেগেছিল। সেকারণেই তার মৃত্য়ু হয়। তার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এদিকে প্রাথমিকভাবে জয়ন্তীলাল পুলিশকে জানিয়েছেন, বাবা মারা যাবেন এটা তিনি বুঝতে পারেননি। তারা পাহাড়ি এলাকায় থাকেন। ভেবেছিলেন সকালে বাবাকে হাসপাতালে নিয়ে যাবেন। কিন্তু সকালে দেখেন বাবা মারা গিয়েছেন। এদিকে পরে জয়ন্তীলাল ব্যাপার বেগতিক বুঝে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।

 

বন্ধ করুন