বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি-শাহি ইদগা মামলা: মসজিদ এলাকার সমীক্ষায় অ্যাডভোকেট কমিশনরকে নিয়োগের পিটিশন দায়ের
শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি-শাহি ইদগা মামলায় নয়া মোড়।
শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি-শাহি ইদগা মামলায় নয়া মোড়।

শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি-শাহি ইদগা মামলা: মসজিদ এলাকার সমীক্ষায় অ্যাডভোকেট কমিশনরকে নিয়োগের পিটিশন দায়ের

  • ২০২০ সালের ২৩ ডিসেম্বর থেকে মথুরার সিভিল জাজ কোর্টে এই মামলা চলছে। ভগবান কেশবদেব মন্দিরের তরফে পিটিশনে এই এলাকার বিষয়ে একাধিক দাবি করা হয়েছে। এবার তারা নয়া পিটিশনে মসজিদের জমি সমীক্ষার দাবি করেছে।

হেমেন্দ্র চতুর্বেদী

মথুরার শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি-শাহি ইদগা মামলায় নতুন মোড়। এই মামলায় এবার মসজিদ এলাকায় সমীক্ষার জন্য অ্যাডভোকেট কমিশনরকে নিয়োগের পিটিশন দায়ের হল কোর্টে। এই কমিশনরের তত্ত্ববধানে শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি সংলগ্ন শাহি ইদগার এলাকায় কোনও হিন্দু ধর্মীয় চিহ্ন রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখতেই একটি সমীক্ষার দাবি করে পিটিশন দায়ের হয়েছে স্থানীয় আদালতে।

মথুরার এক সিভিল জাজ আদালতে এই মামলা দায়ের হয়েছে। গত বেশ কয়েকদিন ধরে এই মামলা নিয়ে সরগরম মথুরা। এই মামলায় পিটিশনারের দাবি, কাশী বিশ্বনাথ-গ্যানবাপী কম্প্লেক্স মামলায় এলাকা নিয়ে সমীক্ষা করতে একজন কমিশনারকে নিয়োগ করা হয়েছিল। সেই সূত্র ধরেই তিনি চাইছেন নতুন করে এই মামলায় ইদগার এলাকা ভিতর সমীক্ষা হোক। পিটিশনারের তরফের আইনজীবী বলছেন, 'শাহি ঈদগাহ মসজিদের অভ্যন্তরে ওম, স্বস্তিক এবং শেষনাগ সহ হিন্দু ধর্মের অবশিষ্টাংশ এখনও রয়েছে যা প্রমাণ করতে পারে যে এটি মূলত ঠাকুর কেশব দেব মন্দির সেখানে রয়েছে।' একইসঙ্গে তাঁর দাবি,'মসজিদ প্রাঙ্গণের ভিডিওগ্রাফি এবং ফটোগ্রাফি সহ একটি সমীক্ষা করা উচিত যেমন বারাণসীর কাশী বিশ্বনাথ মন্দির-জ্ঞানবাপি কমপ্লেক্সে করা হয়েছে।'  শিশুকে নিয়ে একা ট্রেন সফরত মহিলাদের বিশেষ সুবিধা! ভারতীয় রেলে নয়া পরিষেবা শুরু

অন্যদিকে শাহি ইদগার তরফের আইনজীবীর দাবি, 'এগুলি মামলাকে ধীর গতির করে দেওয়ার চাল'। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৩ ডিসেম্বর থেকে মথুরার সিভিল জাজ কোর্টে এই মামলা চলছে। ভগবান কেশবদেব মন্দিরের তরফে পিটিশনে শাহি দরগা সরিয়ে দেওয়ার দাবি করা হয়। সেখানে শ্রীকৃষ্ণের চিহ্ন রয়েছে বলে দাবি করা হয়। এলাকা শ্রীকৃষ্ণজন্মভূমি বলে দাবি করা হয়। মন্দিরের দাবি ১৩.৩৭ একর জমি তাদের।

বন্ধ করুন