বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > যোগী রাজ্যে জনপ্রিয়তা বাড়ছে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের! আবেদন আসছে গুজরাত থেকেও
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

যোগী রাজ্যে জনপ্রিয়তা বাড়ছে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের! আবেদন আসছে গুজরাত থেকেও

  • এই প্রকল্পের সুবিধা পেতে আবেদন যানাচ্ছেন উত্তরপ্রদেশ, গুজরাতে থাকা পড়ুারাও। ভিনরাজ্য থেকে সবথেকে বেশি আবেদন জমা পড়েছে কর্ণাটক।

গত ৩০ জুন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সূচনা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই কার্ডের আওতায় ১০ লক্ষ পর্যন্ত ঋণ পাবেন দশম শ্রেণি থেকে স্নাতকোত্তর পড়ুয়ারা। আর সেই প্রকল্পের জনপ্রিয়তাই ক্রমে বাড়ছে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে। এই প্রকল্পের সুবিধা পেতে আবেদন যানাচ্ছেন উত্তরপ্রদেশ, গুজরাতে থাকা পড়ুারাও। জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত অন্য রাজ্য থেকে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা পেতে ১২ হাজারেরও বেশি পড়ুয়া আবেদন জানিয়েছেন।

জানা গিয়েছে, বিজেপি শাসিত দক্ষিণী রাজ্য কর্ণাটক থেকে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা পেতে আবেদন জানিয়েছেন ৭ হাজারের বেশি পড়ুয়া। এছাড়া উত্তরপ্রদেশ, গুজরাতের মতো রাজ্য থেকেও আসছে আবেদন। এছাড়া ওড়িশা থেকে ৯০০, তেলেঙ্গানা থেকে ৩০০, অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে ৬০০, মহারাষ্ট্র থেকে ৩৫০, উত্তরপ্রদেশ থেকে ৩৩০, দিল্লি থেকে ২০০ ও তামিলনাড়ুর ২৮০জন পড়ুয়া স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার়্ডের জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

পড়ুয়াদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত করতে এই ক্রেডিট কার্ড ভীষণভাবে সাহায্য করবে বলে দাবি করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার পড়াশোনার জন্যও পড়ুয়ারা এই কার্ডের সুবিধা পাওয়া যাবে। এর জন্য আলাদা করে কোনও গ্যারান্টারও লাগবে না পড়ুয়াদের। এই প্রকল্পে পড়ুয়াদের ঋণের গ্যারান্টার হতে চলেছে রাজ্য সরকার। ৪০ বছর পর্যন্ত এই সুবিধা মিলবে। ঋণ শোধ করার জন্যও কোনও তাড়াহুড়ো থাকবে না। ঋণ শোধ করার জন্য সময় দেওয়া হয়েছে ১৫ বছর। মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছিলেন, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মতো এত বড় প্রকল্প সারা বিশ্বে এই প্রথম। পড়ুয়াদের কোর্স ফি, টিউশন ফি, কম্পিউটার, ল্যাপটপ কেনার জন্যও ঋণ মিলবে এই প্রকল্পের আওতায়।

বন্ধ করুন