বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শ্রীকৃষ্ণের জন্মস্থানের জমি ফেরত, ইদগাহ সরানোর জন্য মথুরার আদালতে দায়ের মামলা
মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মন্দির (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মন্দির (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

শ্রীকৃষ্ণের জন্মস্থানের জমি ফেরত, ইদগাহ সরানোর জন্য মথুরার আদালতে দায়ের মামলা

  • আবেদনে দাবি করা হয়েছে, শ্রীকৃষ্ণ জন্মস্থান ট্রাস্ট ও শ্রীকৃষ্ণ বিরাজমানের জমি জবরদখল করে নেওয়া হয়েছে এবং একটি কাঠামো তৈরি করা হয়েছে।

মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের অদূরে অবস্থিত শাহি ইদগাহ সরিয়ে নেওয়ার আর্জি জানিয়ে দায়ের হল দেওয়ানি মামলা। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বিরাজমানের তরফে মথুরা সিনিয়র ডিভিশনের সিভিল জাজের আদালতে সেই মামলা করা হয়েছে। মামলায় উত্তরপ্রদেশের সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড এবং শাহি ইদগাহ ট্রাস্টের পরিচালন সমিতির কমিটি বিবাদী পক্ষ হয়েছে।

রঞ্জনা অগ্নিহোত্রী নামে লখনউয়ের এক বাসিন্দা সেই মামলা দায়ের করেছেন। তাতে মন্দির চত্বরের ১৩.৩৭ একর জমি পুনরুদ্ধাদের দাবি জানানো হয়েছে। কয়েকজন মুসলিমের সহায়তায় শ্রীকৃষ্ণ জন্মস্থান ট্রাস্ট ও শ্রীকৃষ্ণ বিরাজমানের জমি জবরদখল করে নিয়েছে শাহি ইদগাহ ট্রাস্ট। সেখানে একটি কাঠামো তৈরি করা হয়েছে। সেই কাঠামোর নীচেই শ্রীকৃষ্ণের জন্মস্থান বলে দাবি করা হয়েছে মামলায়।

শুধু তাই নয়, বিতর্কিত সম্পত্তির জন্য শাদি ইদগাহ ট্রাস্টের সঙ্গে মন্দিরের পরিচালনা পর্ষদ শ্রীকৃষ্ণ জন্মস্থান সেবা সংস্থান অবৈধভাবে আপস করেছে বলে দাবি করা হয়েছে। আবেদনে জানানো হয়েছে, ‘দেবতা (শ্রীকৃষ্ণ বিরাজমান) এবং ভক্তদের স্বার্থের পরিপন্থী কাজ করছে শ্রীকৃষ্ণ জন্মস্থান সেবা সংস্থান। শাহি ইদগাহ ট্রাস্ট্রের পরিচালন সমিতির কমিটির সঙ্গে জালিয়াতি করে ১৯৬৮ সালে দেবতা এবং ট্রাস্টের সম্পত্তির ভালোরকম অংশ আপস করেছে।’

শ্রীকৃষ্ণ জন্মস্থান সেবা সংস্থান এবং ট্রাস্টের মধ্যে আপস করার যে অভিযোগ উঠেছিল, তা নিয়ে ১৯৭৩ সালের ২০ জুলাই রায় দিয়েছিলের মথুরার সিভিল জাজ। বর্তমান মামলায় ‘সেই রায় খারিজের’ আর্জি জানানো হয়েছে।

বন্ধ করুন