বাড়ি > ঘরে বাইরে > শাহিন বাগের অবস্থান স্থানান্তরে মধ্যস্থতাকারী নিয়োগ সুপ্রিম কোর্টের
অবরোধের ফলে শুধুমাত্র স্থানীয় বাসিন্দারাই সমস্যায় পড়েননি, ওই রাস্তা ব্যবহার করতে পারছেন না অসংখ্য যাত্রী।
অবরোধের ফলে শুধুমাত্র স্থানীয় বাসিন্দারাই সমস্যায় পড়েননি, ওই রাস্তা ব্যবহার করতে পারছেন না অসংখ্য যাত্রী।

শাহিন বাগের অবস্থান স্থানান্তরে মধ্যস্থতাকারী নিয়োগ সুপ্রিম কোর্টের

  • ওঁরা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের অপেক্ষা না করে প্রতিবাদ জানাতেই পারেন। কিন্ত রাস্তা কখনও প্রতিবাদ জানানোর জায়গা নয়।

শাহিন বাগের প্রতিবাদ অবস্থান অন্যত্র সরানোর জন্য প্রতিবাদীদের সঙ্গে আলোচনায় তিন জন মধ্যস্থতাকারী নিয়োগ করল সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার শীর্ষস্থানীয় আইনজীবী সঞ্জয় হেগড়ে ও সাধনা রামচন্দ্রনের সঙ্গে মুখ্য তথ্য কমিশনার ওয়াজাহাত হবিবুল্লার উপরে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

গণতন্ত্রে প্রতিবাদ জানানোর মৌলিক অধিকার থাকলেও তার জন্য পথ অবরোধ করা অনুচিত। সোমবার শাহিন বাগ মামলার শুনানিতে এই মন্তব্য করল সুপ্রিম কোর্ট।

এ দিন বিচারপতি সঞ্জয় কিষাণ কাউল এবং বিচারপতি কে এম জোসেফের দুই সদস্যের সুপ্রিম কোর্ট বেঞ্চ বলে, ‘একটা ভারসাম্য থাকা দরকার। এর জন্য গন্ডগোল হতে পারে।’

দিল্লির শাহিন বাগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী অবস্থানের জেরে জনজীবন ব্যাহত হচ্ছে অভিযোগে সুপ্রিম কোর্টে মামলার শুনানির শুরুতেই এ দিন শীর্ষ আদালতের বেঞ্চ জানিয়েছে, ‘প্রশ্ন হল, ওঁরা কোথায় প্রতিবাদ জানাবেন। সেটা কখনও রাস্তার মতো জায়গায় হতে পারে না।’

বিচারপতি কাউল বলেন, ‘গণতন্ত্রে মতামতের বহিঃপ্রকাশ থাকবেই। কিন্তু তার সীমা-পরিসীমা রয়েছে। ওঁরা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের অপেক্ষা না করে প্রতিবাদ জানাতেই পারেন। কিন্তু বিষয়টি হল, রাস্তা কখনও প্রতিবাদ জানানোর জায়গা নয়।’


আরও পড়ুন: শাহিনবাগে শিশুমৃত্যুর জেরে কেন্দ্র ও দিল্লি সরকারকে সুপ্রিম নোটিশ


সিএএ বিরোধী বিক্ষোভে শাহিন বাগ-কালিন্দি কুঞ্জ অংশে রাস্তা অবরোধ বন্ধ করতে আন্দোলনকারীদের নির্দেশ দেওয়ার আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন আইনজীবী অমিত সাহানি এবং বিজেপি নেতা নন্দ কিশোর গর্গ।

গত সপ্তাহে ভীম আর্মি প্রধান চন্দ্র শেখর আজাদ শীর্ষ আদালতে এই মামলার পক্ষ নিতে আদালতকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, দিল্লি, হরিয়ানা ও উত্তর প্রদেশের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনের কারণে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবরুদ্ধ সড়কের কালিন্দি কুঞ্জ অংশ। অবরোধের ফলে শুধুমাত্র স্থানীয় বাসিন্দারাই সমস্যায় পড়েননি, ওই রাস্তা ব্যবহার করতে পারছেন না অসংখ্য যাত্রী।

তবে পথচারীদের অসুবিধায় ফেলার জন্য পুলিশের দ্বারা অন্যান্য রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগও এনেছেন চন্দ্র শেখর আজাদ। পাশাপাশি, শাহিন বাগ থেকে প্রতিবাদ অবস্থান অন্যত্র সরানোর অছিলায় শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদীদের উপরে পুলিশি নির্যাতনের আশঙ্কার ইঙ্গিতও দিয়েছেন ভীম আদমি পার্টি প্রধান।

আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে।


বন্ধ করুন