বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নির্জলা রোজা পালন, আইনজীবীর প্রশংসা করে শুনানি পিছলেন বিচারপতি চন্দ্রচূড়
বিচারপতি চন্দ্রচূড় (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এএনআই)
বিচারপতি চন্দ্রচূড় (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এএনআই)

নির্জলা রোজা পালন, আইনজীবীর প্রশংসা করে শুনানি পিছলেন বিচারপতি চন্দ্রচূড়

  • বিচারপতিদের কাছে আইনজীবী আবেদন করেন যাতে মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ রমজান মাসের পর দেওয়া হয়। সেই আইনজীবীর এই অনুরোধ রাখেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়।

রমজানের কঠিন নিময় পালন করায় সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতির থেকে প্রশংসা কুড়োলেন এক আইনজীবী। উল্লেখ্য, শুরু হয়েছে রমজান মাস। ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের অনেকেই রোজা রাখেন এই মাসে। আর এই রোজা পালন করতে গিয়ে সুপ্রিমকোর্টে চলতে থাকা মামলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জোগাড় করে উঠতে পারেননি এক আইনজীবী। এহেন পরিস্থিতিতে বিচারপতিদের কাছে সেই আইনজীবী আবেদন করেন যাতে মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ রমজান মাসের পর দেওয়া হয়। সেই আইনজীবীর এই অনুরোধ রাখেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়। পাশাপাশি এই কঠিন নিয়ম পালনের জন্য প্রশংসা করলেন বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়।

স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন (এসএলপি)-এর শুনানি শুনছিলেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় আর বিচারপতি এমআর শাহ। এই মামলায় এলাহাবাদ হাইকোর্ট খুনের মামলায় অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করে আজীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে। শুনানির সময় কাউন্সিলের সদস্য আইনজীবী জানান যে, এই মামলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জোগাড় করতে তাঁর সময় লাগবে, কারণ তিনি রমজান মাসে রোজা রেখেছেন।

তাঁর অনুরোধের উত্তরে বিচারপতি চন্দ্রচূড় বলেন, 'আমি দুঃখিত। সকালেই আপনার এই বিষয়টি জানানো উচিত ছিল, তাহলে আমরা মামলার শুনানি স্থগিত রাখতাম। আপনি নিশ্চিন্তে যান, বিশ্রাম নিন। সারাদিন এক ফোঁটা জলও না খেয়ে উপোস করে থাকা, এই ক্ষমতার প্রশংসা করছি আমি।' এরপর বেঞ্চের তরফে এসএলপি-র পরবর্তী দিন ঠিক করা হয়েছে ১০ মে।

প্রসঙ্গত, মুসলিমদের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী বছরেরর নবম মাস হল রমজান। এই সময়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন রোজা পালন করেন। রোজা রাখলে সূর্য ওঠার ঠিক আগের মুহূর্ত থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সময় কিছু খেতে পারেন না তাঁরা। এমনকি এক ফোঁটা জলও মুখে দেওয়ার নিয়ম নেই।

 

বন্ধ করুন