বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলার জন্যে আরও টিকার আবেদন শুভেন্দুর, তুললেন মমতার পোর্টাল বন্ধের দাবি
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী (ছবি সৌজন্যে টুইটার)
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

বাংলার জন্যে আরও টিকার আবেদন শুভেন্দুর, তুললেন মমতার পোর্টাল বন্ধের দাবি

  • বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধনের সঙ্গে দেখা করে টিকা বণ্টন নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

এতদিন কেন্দ্রের কাছে আরও বেশি করে টিকা পাঠানোর দাবি করে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই দাবি জানালেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীও। তবে শুভেন্দুর দাবির নেপথ্যে ছিল রাজ্যকে তোপ দাগার কৌশল। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধনের সঙ্গে দেখা করে টিকা বণ্টন নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের চালু করা পোর্টাল বেনভ্যাক্স বন্ধেরও দাবি তোলেন শুভেন্দু।

সূত্রে খবর, শুভেন্দু অধিকারী এদিন অভিযোগ করেন, ২১ জুন থেকে গোটা ভারতে ১৮ ঊর্ধ্বদের বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হয়েছে। কো-উইন অ্যাপের মাধ্যমে নথিভুক্তকরণের পদ্ধতি। সেখানে পশ্চিমবঙ্গ সরকার বেনভ্যাক্স নামের একটি আলাদা অ্যাপ চালু করেছে। পাশাপাশি রাজ্যে আরও বেশি বেশি করে টিকা পাঠানোর আবেদন জানান শুভেন্দু। এদিন শুভেন্দু বলেন, 'পশ্চিমবঙ্গ অনেক টিকা পাচ্ছে। তবে আরও যাতে বেশি করে টিকা পায় এবং শীঘ্রই রাজ্যে টিকাকরণ সম্পন্ন করা যায়, এর জন্যে আমি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছি।'

অন্যদিকে, রাজ্যে টিকাকরণের বেনিয়ম নিয়ে অভিযোগ তোলেন শুভেন্দু। জানা গিয়েছে, শুভেন্দু আরও অভিযোগ করেছেন, যেখানে রাজ্যের বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা, সেখানে বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে রাজ্য একটি চুক্তি করেছে। বেসরকারি সংস্থা ৫২৫ টাকার বিনিময়ে ভ্যাকসিন দিচ্ছে। সেক্ষেত্রে তাদের ৩১৫ টাকা করে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দিতে বলা হয়েছে। যা বেআইনি। শুভেন্দু অধিকারী বলেন, 'সরসারি অভিযোগ করেছি। এই ঘটনা নিয়ে ইমেলেও অভিযোগ জানাব ডঃ হর্ষ বর্ধনকে।'

এদিকে রাজ্যের ভোট-পরবর্তী হিংসা নিয়ে বৃহস্পতিবার বিরোধী দলনেতা বলেন, 'আশা করব পশ্চিমবঙ্গে যে নরসংহার হয়েছে তার উপযুক্ত তদন্ত হবে। স্বাধীনতার পর এত অত্যাচার বাংলায় হয়নি। অত্যাচারীদের খুঁজে বের করে তাদের শাস্তি দেওয়া হোক। এটাই আমি চাই। এই ঘটনায় এসপি, আইসি, ওসি; সবার ভূমিকা পর্যালোচনা করা দরকার।'

 

বন্ধ করুন