বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিজেপির মন্ত্রীর সঙ্গে একই ফ্রেমে কংগ্রেসের সহ সভাপতি, ছবি ভাইরাল হতেই পদত্যাগ
ত্রিপুরায় একেবারে ডামাডোল পরিস্থিতি কংগ্রেসের অন্দরে   (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই) (ফাইল ছবি)
ত্রিপুরায় একেবারে ডামাডোল পরিস্থিতি কংগ্রেসের অন্দরে   (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই) (ফাইল ছবি)

বিজেপির মন্ত্রীর সঙ্গে একই ফ্রেমে কংগ্রেসের সহ সভাপতি, ছবি ভাইরাল হতেই পদত্যাগ

  • তাপস দে'র পদত্যাগের আগে সোশ্য়াল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ছবিকে একেবারে হইহই কাণ্ড ত্রিপুরায়।

এবার ত্রিপুরা কংগ্রেসের সহ সভাপতি তাপস দে পদত্য়াগ করলেন। তবে তিনি এখনও দল ছাড়েননি। এদিকে এর আগে রাজ্য কংগ্রেসের সভাপতি পীযূষ কান্তি বিশ্বাস পদত্যাগ করেছিলেন। তবে কংগ্রেস নেতা ডঃ অজয় কুমারের হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত তিনি পদত্যাগ পত্র প্রত্যাহার করেন। অজয় কুমার ত্রিপুরায় এসে জানিয়ে গিয়েছেন ত্রিপুরায় রাজ্য নেতারা স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করে একেবারে ফ্রি হ্যান্ড হয়ে কাজ করতে পারবেন। এনিয়ে কেউ কোনও হস্তক্ষেপ করবেন না। তারপরেই কার্যত গলে জল হয়েছে যাবতীয় অভিমান। কিন্তু তাপস দের পদত্যাগের আগে আবার অন্য প্রেক্ষাপট। আসলে সোশ্য়াল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ছবিকে ঘিরে হইহই কাণ্ড শুরু হয়ে গিয়েছিল ত্রিপুরায়। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিকের পাশে রয়েছেন তাপস দে। আর এই ছবিকে ঘিরেই দানা বেঁধেছে বিতর্ক। 

এদিকে ওই ছবির কথা খোদ তাপস দে নিজেই উল্লেখ করেছেন। পীযূষকান্তি বিশ্বাসের কাছে পাঠানো পদত্যাগপত্রে তিনি লিখেছেন এই ছবিকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। বুধবার মালঞ্চ নিবাসে রাজমাতা বিভু কুমারী দেবী সঙ্গে সৌজন্যতাবশত তিনি দেখা করেছিলেন।  ঘটনাচক্রে সেখানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও ছিলেন। তিনি লিখেছেন, ‘কোনও রাজনৈতিক কথাবার্তা আমাদের মধ্যে হয়নি। রাজ্যের কিছু উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এবার কেবলমাত্র দলের প্রাথমিক সদস্যপদটুকু বাদ দিয়ে সব পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইছি। যদি আপনি চান তবে দলের সদস্যপদও ছেড়়ে দেব।’ এদিকে রাজপরিবার ঘনিষ্ঠ এই প্রাক্তন বিধায়ক তথা কংগ্রেস নেতার চিঠি পেয়েছেন শোরগোল কংগ্রেসের অন্দরে। 

 

বন্ধ করুন