বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কাশ্মীরে স্পেশাল পুলিশ অফিসারের বাড়িতে জঙ্গি হামলা, মৃত SPO ও স্ত্রী, আহত মেয়ে
কাশ্মীরে প্রাক্তন স্পেশাল পুলিশ অফিসারের বাড়িতে জঙ্গি হামলা, মৃত ২ : ANI। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
কাশ্মীরে প্রাক্তন স্পেশাল পুলিশ অফিসারের বাড়িতে জঙ্গি হামলা, মৃত ২ : ANI। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

কাশ্মীরে স্পেশাল পুলিশ অফিসারের বাড়িতে জঙ্গি হামলা, মৃত SPO ও স্ত্রী, আহত মেয়ে

  • রবিবার ভোররাতে জম্মুতে বায়ুসেনার ঘাঁটিতে হামলা চালানো হয়েছিল।

শনিবার মধ্যরাতে জম্মুতে বায়ুসেনার স্টেশনে হামলা চালানো হয়েছিল। সেই ঘটনার পর ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই রবিবার রাতে জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় এক স্পেশাল পুলিশ অফিসারের (এসপিও) বাড়িতে হামলা চালাল জঙ্গিরা। মৃত্যু হয়েছে ওই স্পেশাল পুলিশ অফিসার এবং তাঁর স্ত্রী'র। আহত হয়েছেন তাঁদের মেয়ে।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত স্পেশাল পুলিশ অফিসারের নাম ফয়াজ আহমেদ। তিনি পুলওয়ামায় কর্মরত ছিলেন। প্রাথমিকভাবে অবন্তীপোরার পুলিশ কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত এক আধিকারিক বলেন, ‘হামলায় উনি মারা গিয়েছেন। তাঁর স্ত্রী এবং মেয়ে আহত হয়েছেন। তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।’ পরে পুলিশের তরফে জানানো হয়, স্পেশাল পুলিশ অফিসারের স্ত্রীও মারা গিয়েছেন।

তারইমধ্যে টুইটারে কাশ্মীর জোনের পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, অবন্তীপোরার হরিপরিগামে ফয়াজের বাড়িতে ঢুকে নির্বিচারে গুলি চালায় জঙ্গিরা। সেই সন্ত্রাসবাদী হামলায় ফয়াজ, তাঁর স্ত্রী এবং মেয়ে গুলিবিদ্ধ হন। কিছুক্ষণ পরেই মৃত্যু হয় ফয়াজের। পরে হাসপাতালে মারা যান স্পেশাল পুলিশ অফিসারের স্ত্রী। আপাতত পুরো এলাকা ঘিরে রাখা হয়েছে। চালানো হচ্ছে তল্লাশি।

মাত্র দিনকয়েক আগেই (২২ জুন) শ্রীনগরের বাইরের দিকে মৃত্যু হয়েছিল এক পুলিশ আধিকারিকের। পুলিশের তরফে জানানো হয়, নওগামে বাড়ির কাছেই পারভেজ আহমেদ নামে ওই ইন্সপেক্টরকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। তড়িঘড়ি তাঁকে পুরনো শহরের শ্রী মহারাজা হরি সিং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। সেই ঘটনায় জঙ্গিদের হাত আছে বলেই প্রাথমিকভাবে অনুমান পুলিশের।

দিনকয়েকের ব্যবধানে একই ধাঁচে দুই পুলিশ আধিকারিকের উপর হামলার ঘটনায় উদ্বেগ তৈরি হয়েছিল। বিশেষত শনিবার মধ্যরাতে জম্মুতে বায়ুসেনার ঘাঁটিতে হামলা চালানো হয়। আধিকারিকরা জানিয়েছেন, জম্মু বিমানবন্দরের বায়ুসেনার স্টেশনে দুটি বিস্ফোরক-বোঝাই ড্রোন আছড়ে পড়ে। পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুটি বিস্ফোরণ হয়। যা ভিভিআইপি এবং সশস্ত্র বাহিনীর কৌশলগত অভিযানের জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। জোড়া বিস্ফোরণে আহত হন দু'জন বায়ুসেনা আধিকারিক। পরে জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিং জানান, জঙ্গি হামলা চালানো হয়েছিল বায়ুসেনার স্টেশনে। তিনি বলেন, 'আমরা অপর একটি ঘটনায় এক জঙ্গির কাছ থেকে পাঁচ থেকে ছয় কেজি বিস্ফোরক উদ্ধার করেছি। সেই সব বিস্ফোরক ভারতে আনার নেপথ্যে ছিল লস্কর (লস্কর-ই-তইবা)। এই বিস্ফোরক কোনও জনবহুল এলাকায় রেখে আসার পরিকল্পনা ছিল। এই বিস্ফোরক উদ্ধার করার ফলে অনেক বড় হামলা আটকানো গিয়েছে। এই ঘটনায় আরও সন্দেহভাজনদের শীঘ্রই আটক করা হবে। কেন্দ্রীয় সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে বায়ুসেনা ঘাঁটির বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।'

বন্ধ করুন