বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নয়া আতঙ্কের নাম 'মাঙ্কিপক্স', করোনা আবহে ছড়াচ্ছে বিরল সংক্রমণ, নেই কোনও ওষুধ
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স

নয়া আতঙ্কের নাম 'মাঙ্কিপক্স', করোনা আবহে ছড়াচ্ছে বিরল সংক্রমণ, নেই কোনও ওষুধ

  • গোটা বিশ্ব এখনও করোনা জ্বরে জর্জরিত। এরই মাঝে আরও নতুন নতুন সংক্রমণ ছড়াচ্ছে।

গোটা বিশ্ব এখনও করোনা জ্বরে জর্জরিত। এরই মাঝে আরও নতুন নতুন সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। ভারতে ইতিমধ্যেই আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। এই একই ভাবে এবার ব্রিটেনে ছড়াচ্ছে মাঙ্কিপক্স। উত্তর ওয়েলসে ইতিমধ্যেই ২ জন এই নয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আতঙ্কের সবথেকে বড় কারণ, এই রোগের বিশেষ কোনও ওষুধ নেই। এই নয়া ভাইরাসে আর কেই সংক্রমিত কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান ব্রিটেনের স্বাস্থ্যসচিব ম্যাট হ্যানকক।

২০১৭ সালে প্রথমবার মাঙ্কিপক্সের কথা জানতে পেরেছিল বিশ্ব। এই সংক্রমণ ধরা পড়েছিল নাইজেরিয়ায়। গুটিবসন্তের গোত্রেরই ভাইরাস এই মাঙ্কিপক্স। তবে গুটিবসন্তের এর সংক্রমণের মাত্রা কম। মাঙ্কিপক্সের ভাইরাসে আক্রান্ত হলে ১২ দিন পর মাথাব্যথা, পেশিতে ব্যথা এবং ক্লান্তি ভাব দেখা যায় বলে জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন বা সিডিসি।

কাঠবিড়ালি বা ইঁদুর এই মাঙ্কিপক্স ভাইরাসের বাহক। এই ভাইরাসে সংক্রমিত হলে ৩ দিন পর থেকে দেহে র‌্যাশ বেরোবে। তাছাড়া আক্রান্তের শরীরে হাল্কা জ্বরও থাকবে। পরে সেই র‌্যাশ সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়বে। র‌্যাশের কারণে চুলকানিও হবে। এর জেরে রোগী ক্লান্ত থাকবেন ২-৪ সপ্তাহ। তবে এই রোগের বিশেষ কোনও ওষুধ নেই। মাঙ্কিপক্সের চিকিত্সায় গুটিবসন্তের টিকা সিডোফোভির, এসটি-২৪৬ এবং ভ্যাকসিনিয়া ইমিউন গ্লোবিউলিন ব্যবহার করা যেতে পারে।

বন্ধ করুন