বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Pulse price decrease: ডালের দামে মিলতে চলেছে স্বস্তি, আগামী মাস থেকে কমার সম্ভাবনা, জানাল কেন্দ্র

Pulse price decrease: ডালের দামে মিলতে চলেছে স্বস্তি, আগামী মাস থেকে কমার সম্ভাবনা, জানাল কেন্দ্র

ডালের দামে মিলতে চলেছে স্বস্তি, আগামী জুলাই থেকে কমার সম্ভাবনা, জানাল কেন্দ্র

কেন্দ্রীয় সচিব জানান, এ বছর ভালো বর্ষার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া ডালের আমদানিও বাড়ানো হবে। ফলে জুলাই থেকে এই সমস্ত ডলের দাম কমতে পারে। তিনি বলেন, আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, এ বছর ভালো বর্ষা হবে। যেহেতু ডালের দাম বেশি তাই লাভ পাওয়ার আশায় কৃষকরা জমিতে বেশি করে ডাল জাতীয় ফসল চাষ করবেন।

বর্তমানে তিন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ ডালের দাম ব্যাপক হারে বেড়েছে। যার মধ্যে রয়েছে ছোলার ডাল, অরহর ডাল এবং উরদ ডাল। এই সমস্ত ডালের বর্তমান বাজারদর রয়েছে প্রতি কেজিতে ৮৭ টাকা ১৬০ টাকার মধ্যে। অন্যান্য সবজির পাশাপাশি ডালের দাম ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাওয়ায় নাভিশ্বাস উঠেছে মধ্যবিত্তের। এই অবস্থায় আশার বাণী শোনালো কেন্দ্র। আগামী মাস থেকে এই সমস্ত ডালের দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সচিব নিধি খারে। ফলে ডালের দাম নিয়ে তিনি আমজনতাকে আতঙ্কিত না হওয়ার বার্তা দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: এবার সরকার বেচবে ‘ভারত ডাল’, দাম কত পড়বে?

কেন্দ্রীয় সচিব জানান, এ বছর ভালো বর্ষার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া ডালের আমদানিও বাড়ানো হবে। ফলে জুলাই থেকে এই সমস্ত ডলের দাম কমতে পারে। তিনি বলেন, আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, এ বছর ভালো বর্ষা হবে। যেহেতু ডালের দাম বেশি তাই লাভ পাওয়ার আশায় কৃষকরা জমিতে বেশি করে ডাল জাতীয় ফসল চাষ করবেন। এর ফলে দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারে ডালের উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। ফলে চাহিদাও পূরণ হবে। তাতে স্বাভাবিকভাবে দাম কমবে। কৃষকরা যাতে।সহজেই ডাল জাতীয় শস্যের চাষ করতে পারেন তারজন্য সরকার তাদের উন্নত মানের বীজ সরবরাহ করবে বলে তিনি জানান। 

সাধারণত অভ্যন্তরীণ বাজারে চাহিদা মেটাতে ভারত প্রতি বছরই প্রচুর পরিমাণে ডাল আমদানি করে থাকে। মূলত মায়ানমার এবং আফ্রিকার দেশগুলি থেকে ভারত এই সমস্ত ডাল জাতীয় শস্য আমদানি করে থাকে। গত বছর ভারত প্রায় ৮ লক্ষ টন অড়হড় এবং ৬ লক্ষ টন উরদ আমদানি করেছিল। সচিব জানিয়েছেন, আমদানি বাড়ানোর পাশাপাশি দেশীয় খুচরো বিক্রেতা এবং হোল সেলারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। 

উল্লেখ্য, ২০২৩-২৪ শস্য বছরে অড়হড় উৎপাদন হয়েছিল ৩৩.৮৫ লক্ষ টন। কিন্তু, সেখানে চাহিদা ছিল ৪৪ থেকে ৪৫ লক্ষ টন। ছোলার ডাল উৎপাদন হয়েছিল ১১৫ লক্ষ ৭৬ হাজার টন। তবে চাহিদা ছিল ১১৯ লক্ষ টন। উরদের উৎপাদন হয়েছিল ২৩ লক্ষ টন। সেবার এই ডালের চাহিদা ছিল ৩৩ লক্ষ টন। সাধারণত উৎপাদনের এই ঘাটতি পূরণ করার জন্য প্রচুর পরিমাণে ডাল প্রতিবছরই আমদানি করে থাকে ভারত। 

অন্যদিকে, এবছর তীব্র তাপগ্রহের প্রবাহের ফলে আলু চাষে ক্ষতি হওয়ায় চাহিদা বেড়েছে বলে তিনি জানান। তবে আপাতত বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেওয়ায় ডালের উৎপাদন ভালো চাষ হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে ৬০ টাকা প্রতি কেজিতে ছোলার ডাল বিক্রি করা। এর ফলে স্বস্তি পাবেন আমজনতা। বর্তমানে ছোলার ডালের বাজার দর হল প্রতি কেজিতে ৮৭.৭৪ টাকা, অরহর ডালের বাজারদর ১৬০.৭৫ টাকা এবং উরদ ডালের বাজারদর ১২৬.৬৭ টাকা।

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

সরকারি কর্মীরা আরএসএস কর্মসূচিতে অংশ নিতে পারবেন, আগের নির্দেশ তুলে নিল সরকার ৫৯-এ সেকেন্ড ইনিংস স্নেহাশিসের! ডোনার চেয়েও বয়সে ছোট সৌরভের নতুন বৌদি? অবিচার হল হার্দিকের সঙ্গে- বোর্ডের সিদ্ধান্তে অবাক ভারতের প্রাক্তন ব্যাটিং কোচ দরজায় কড়া নাড়লে আশ্রয় দেব- বাংলাদেশ নিয়ে ২১ শের মঞ্চ থেকে যা বললেন দিদি যদি প্রথমবার শ্রাবণ সোমবারের উপবাস করেন, তাহলে জেনে নিন কী খাবেন আর কী খাবেন না প্রস্তুতি সেরে রাখল বিধানসভা, রাত পোহালেই চার বিধায়কের শপথ হতে চলেছে রানাঘাটের কাছে বেলাইন হল মালগাড়ি, ফের দুর্ঘটনা ট্রেন পথে সোম থেকে দক্ষিণবঙ্গে বাউন্ডারি হাঁকানোর মেজাজে বর্ষা!বৃষ্টি হতে পারে কোথায় কোথায় 'গরীব থাকুন, লোভ করার দরকার নেই...' ২১ শের মঞ্চ থেকে কড়া বার্তা মমতার রাজ্যের এক্তিয়ারই নেই! বাংলাদেশিদের আশ্রয় নিয়ে মমতার কথায় পাত্তা দিল না কেন্দ্র

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.