বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারতে সংবাদপত্রের গুরুত্ব এখনও অপরিসীম : সি-ভোটার সমীক্ষা
হিন্দুস্তান টাইমসের প্রথম পৃষ্ঠা
হিন্দুস্তান টাইমসের প্রথম পৃষ্ঠা

ভারতে সংবাদপত্রের গুরুত্ব এখনও অপরিসীম : সি-ভোটার সমীক্ষা

  • নয়া সমীক্ষা অনুযায়ী, পাঠকদের কাছে এখনও সংবাদপত্রের মূল্য অপরিসীম।

মনু শর্মা

সেকেন্ডের ভগ্নাংশে পালটে যাওয়া পৃথিবীতে সংবাদপত্রের কি প্রাসঙ্গিকতা কমছে? দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন মহলেই সেই আলোচনা চলছে। তবে নয়া সমীক্ষায় যে তথ্য উঠে এল, তাতে পাঠকদের কাছে এখনও সংবাদপত্রের মূল্য অপরিসীম। ‘সি-ভোটার মিডিয়া কনজামশন সার্ভে, ২০২০’ অনুযায়ী, যে ক্ষেত্রগুলিতে প্রচলিতভাবে বৈদ্যুতিন মাধ্যমের দাপট আছে, সেগুলির ক্ষেত্রেও সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে লাভবান হন পাঠকরা। তাঁরা সংবাদপত্র পড়তে পছন্দ করেন।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, কোনও খেলার সম্প্রচার। সরাসরি সম্প্রচার এবং বিশেষজ্ঞদের ধারাভাষ্যের পরও ৫২ শতাংশ উত্তরদাতা সংবাদপত্রে সেই বিষয় নিয়ে লেখা প্রতিবেদন পড়তে চান। ভালোভাবে লেখা সংবাদপত্রের প্রতিবেদন এখনও অধিকাংশ পাঠককে আকর্ষণ করে।

সমীক্ষার প্রশ্ন : ম্যাচের সরাসরি সম্প্রচারের পরও আমি সংবাদপত্রে পড়তে চাই।
সমীক্ষার প্রশ্ন : ম্যাচের সরাসরি সম্প্রচারের পরও আমি সংবাদপত্রে পড়তে চাই।

সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপনের প্রভাব : 

বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমের কঠোর প্রতিযোগিতা সত্ত্বেও মুদ্রিত শব্দের প্রতি যে আকর্ষণ আছে, তার ফলে সংবাদপত্রে প্রকাশিত বিজ্ঞাপনেরও গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব আছে। ৬৫ শতাংশ উত্তরদাতা একমত হয়েছেন যে সংবাদপত্রে প্রকাশিত বিজ্ঞাপনে তাঁরা বেশি তথ্য পেয়েছেন। ২৫ শতাংশ উত্তরদাতা অবশ্য তাতে সহমত পোষণ করেননি। তাঁরা জানিয়েছেন, সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপনে কম বা একইরকম তথ্য আছে।

সেই প্রতিক্রিয়া থেকে দুটি বিষয় ব্যাখ্যা করা যায়। প্রথমত, তথ্য ‘সঞ্চয়’, মনোযোগ-সহ বিভিন্ন কারণে টার্গেট অডিয়েন্সের কাছে সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন গুরুত্বপূর্ণ। বাজারের মূল অংশের কাছে সেই বিজ্ঞাপন আকর্ষণীয় হয়। পাঠকের বেশি ক্রয়ক্ষমতা বা প্রভাবিত করার ক্ষমতার জন্য বিজ্ঞাপন এবং সম্ভাব্য বিক্রির মধ্যে ইতিবাচক সম্পর্ক থাকার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।

সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপনে যে তথ্য আছে, তা আমার কাজে লাগে।
সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপনে যে তথ্য আছে, তা আমার কাজে লাগে।
সংবাদপত্রের পছন্দের বিভাগ আছে, যা প্রথমে পড়েন।
সংবাদপত্রের পছন্দের বিভাগ আছে, যা প্রথমে পড়েন।

সংবাদপত্রের কোন বিভাগ সবথেকে বেশি পছন্দ করেন, সে বিষয়ে ভারতীয় পাঠকরা মোটামুটি স্পষ্ট। ৭১ শতাংশেরও বেশি পাঠক জানিয়েছেন, সংবাদপত্রে তাঁদের একটি পছন্দের বিভাগ আছে। যা তাঁরা প্রথম পড়েন। অর্থাৎ পাঠকদের প্রথমে পছন্দের পৃষ্ঠা বা বিভাগে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যা নিশ্চিত করে যে সংবাদপত্রের কোনও বিভাগ বা পৃষ্ঠার জনপ্রিয়তার সঙ্গে মানুষের অগ্রাধিকারের উল্লেখযোগ্য সংযোগ আছে।

কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ও খবরের গুরুত্ব

সামগ্রিক খবর ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের কভারেজের জন্য সংবাদপত্রে ভরসা
সামগ্রিক খবর ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের কভারেজের জন্য সংবাদপত্রে ভরসা

এখনও সংবাদপত্রের মূল ভিত্তি হল খবর ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের কভারেজ। ৭৫ শতাংশ উত্তরদাতাই জানিয়েছেন যে সামগ্রিক খবর ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের কভারেজের জন্য সংবাদপত্রকেই ভরসা করেন তাঁরা। অন্যভাবে বলতে গেলে ‘খবর’-এর জন্য তিন-চতুর্থাংশ পাঠক সংবাদপত্রকেই পছন্দ করেন। অর্থাৎ খবরের ক্ষেত্রে সংবাদপত্র হল পছন্দের মাধ্যম। 

চমকপ্রদ খবরের সঙ্গে রিয়্যালিটি টেলিভিশনের দিকেই এখন বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমের মূল নজর সরে গিয়েছে। টিআরপি বৃদ্ধির জন্য ভালো হলেও আদতে তা সংশ্লিষ্ট মাধ্যমের বড়সড় ক্ষতি করে। তাই সংবাদপত্রের প্রভাব এখনও অত্যন্ত বেশি এবং শীর্ষে আছে। তবে তা পরিসংখ্যানের রূপ দেওয়া অত্যন্ত কঠিন। তুলনামূলক ভিত্তিতে সেই ছবিটা স্পষ্ট হয়।

পরিশেষে বলা যায় যে প্রযুক্তিগতভাবে এগিয়ে থাকা প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যেও নিজের জমি আঁকড়ে পড়ে থাকা সংবাদপত্রের বড়সড় কৃতিত্ব। প্রতি পোস্টে ভিউ বাা টিআরপির যুগেও পুরনো দিনের ভালো অখণ্ডতা, বিশ্বাসযোগ্য এবং বিস্তারিত কভারেজের মূল্যবোধ এখনও অটুট আছে সংবাদপত্রের।

বন্ধ করুন