বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > থানার আলমারি থেকেই চুরি ১১ লাখ, পুলিশের সোনার গয়নাও উধাও, সর্ষের মধ্যেই ভূত?
থানার আলমারি থেকেই চুরি নগদ, সোনার গয়না।প্রতীকী ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

থানার আলমারি থেকেই চুরি ১১ লাখ, পুলিশের সোনার গয়নাও উধাও, সর্ষের মধ্যেই ভূত?

  • প্রচলিত প্রবাদ আছে রক্ষকই ভক্ষক। থানার আলমারি থেকে সোনা, নগদ চুরির ঘটনার জেরে ফের সামনে আসছে সেই প্রবাদের কথা।

শচিন সাইনি

থানাতে চুরি! শুনেছেন কখনও? সেটাই হয়েছেন রাজস্থানের কোটা জেলায়। থানা থেকে প্রায় ১১.৩৫ লাখ টাকা, সোনার গয়না সহ এক অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মীর জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দিয়েছে চোর। ৩১ অগস্ট এনিয়ে অভিযোগ জানানো হয়েছে। 

ওই অবসরপ্রাপ্ত সাব ইনসপেক্টর রামকরণ নাগর এনিয়ে একটি এফআইআর করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, গুমানপুরা থানায় পোস্টিং ছিলাম আমি। সেই সময় আমার স্ত্রী কোভিডে মারা গিয়েছিলেন। এরপর সোনার অলঙ্কার আর টাকা ব্যাঙ্কের লকারে না রেখে আমি আমার অফিসের আলমারিতে রেখেছিলাম। দুটো তালাও দিয়েছিলাম। এরপর কাজের ব্যস্ততায় তা আলমারিতেই থেকে যায়। এরপর ১৬ জুলাই আলমারি খুলে দেখা যায় সেই মূল্যবান সামগ্রী আর নেই। কিন্তু কারা সরাল এসব?

তাঁর মতে, থানার স্টাফরা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে। কারণ বাইরের লোক এখানে ঢুকতে পারেন না। ন্যাক্রো টেস্টেরও দাবি করেছেন তিনি। এদিকে এই চুরির ঘটনার মামলা করতেও রীতিমতো কাঠখড় পোড়াতে হচ্ছে তাঁকে।

কোটা রেঞ্জের ইনস্পেক্টর জেনারেল প্রসান কুমার খামেসরা জানিয়েছেন, একটা মামলা রুজু করা হয়েছে। ওই অবসরপ্রাপ্ত আধিকারিক মনে করছেন থানার কেউ এই ঘটনায় যুক্ত থাকতে পারে। অফিসের আলমারি থেকেই তাঁর টাকা, গয়না খোয়া গিয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। 

 

বন্ধ করুন