বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ছবিতে কোন প্রাণী? বেশিরভাগ ব্যক্তিই ১০ সেকেন্ডের মধ্যে বলতে পারবেন না
ছবি : টুইটার (Twitter)
ছবি : টুইটার (Twitter)

ছবিতে কোন প্রাণী? বেশিরভাগ ব্যক্তিই ১০ সেকেন্ডের মধ্যে বলতে পারবেন না

ছবিটি শেয়ার করেছেন IFS অফিসার রমেশ পান্ডে। তাঁর টুইট করা ক্যাপশান না পড়ে ছবির প্রাণীটি চিনতে বেগ পাচ্ছেন অনেকেই।

আপনার জন্য রইল একটি ধাঁধা। উপরের ছবিটি দেখুন। আর ১০ সেকেন্ডের মধ্যে বলুন এর মধ্যে কোন্ প্রাণী রয়েছে। কোনও চিটিং চলবে না কিন্তু!

ছবিটি শেয়ার করেছেন IFS অফিসার রমেশ পান্ডে। তাঁর টুইট করা ক্যাপশান না পড়ে ছবির প্রাণীটি চিনতে বেগ পাচ্ছেন অনেকেই।

তবে একটু ভাল করে দেখলেই বুঝতে পারবেন ছবির প্রাণীটি কী। এতক্ষণে হয় তো বুঝেও গিয়েছেন। আর প্রাণীটির এই ক্ষমতাই তাকে অন্যতম ভাল শিকারী করে তুলেছে।

আজ্ঞে হ্যাঁ। ছবির প্রাণীটি একটি লেপার্ড। উত্তরপ্রদেশের বহরাইচে একটি কৃষিক্ষেতের মধ্যে ঘাপটি মেরে বসে তিনি। আইএফএস অফিসার রমেশ পান্ডের টুইট অনুযায়ী, এই লেপার্ডটি ভুল করে জঙ্গল থেকে লোকালয়ে প্রবেশ করে ফেলে।

সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়রা ফরেস্ট অফিসারদের বিষয়টি জানান। কিন্তু বনকর্মী ও আধিকারিকরা সেখানে এসেই মুশকিলে পড়েন। এত ঘন ক্ষেতের মাঝে চিতাবাঘটি কোথায় বসে, কী করে খুঁজবেন। সেই সময়েই হল মুশকিল আসান।

ড্রোন ওড়ানো হল। ড্রোনের মাধ্যমে বিস্তীর্ণ ক্ষেতে কোথায় চিতাবাঘটি লুকিয়ে, তার খোঁজ করা হয়। সেই সময়েই ক্ষেত্রের মাঝে এভাবে লুকিয়ে থাকতে দেখা যায় চিতাবাঘটিকে। আর তখনই তোলা হয় এই ছবিটি।

দেখুন আইএফএস অফিসারের করা সেই টুইট।

ততক্ষণে জমে গিয়েছে প্রায় ৩,০০০ উত্সুক গ্রামবাসী। এরই মধ্যে গমের ক্ষেতে ঘুমপাড়ানী গুলি দিয়ে উদ্ধার করা হয় চিতাবাঘটিকে।

সাধারণত বয়স্ক বা অসুস্থ চিতাবাঘই খাবারের খোঁজে লোকালয়ে প্রবেশ করে। এর কারণ হল, জঙ্গলে হরিণ জাতীয় প্রাণী অনেক বেশি ক্ষিপ্র। অসুস্থ শরীরে জঙ্গলে তাদের সন্ধান করা ও শিকার করা অনেক বেশি কঠিন। তাই সেই সময়েই সহজে গবাদি পশু শিকারের আশায় লোকালয়ে প্রবেশ করে বাঘ-জাতীয় প্রাণীরা।

আবার ক্রমে বনাঞ্চল ধ্বংস করে কৃষিজমি করার ফলেও ভুল করে বাঘ লোকালয়ে ঢুকে পরে।

ছবিটি যে ভীষণই সুন্দর, তাই নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তবে, মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে বন্যপ্রাণী যে ক্রমেই তাদের বাসস্থান হারাচ্ছে, সে কথাও মনে করিয়ে দিচ্ছে এই ছবি।

বন্ধ করুন