বাড়ি > ঘরে বাইরে > ভারতে সংক্রমণের মাত্রা বাড়ার পাশাপাশি করোনার প্রকোপ বাড়ছে এই ১৫ শহরে
মুম্বইয়ের বস্তি অঞ্চলে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছেন পিপিই পরিহিত স্বাস্থ্যকর্মীরা। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)
মুম্বইয়ের বস্তি অঞ্চলে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছেন পিপিই পরিহিত স্বাস্থ্যকর্মীরা। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

ভারতে সংক্রমণের মাত্রা বাড়ার পাশাপাশি করোনার প্রকোপ বাড়ছে এই ১৫ শহরে

  • ১৫টি শহরের এই তালিকায় রয়েছে গুরুগ্রাম, ফরিদাবাদ, ভদোদরা, সোলাপুর ও গুয়াহাটি, যেখানে গত ১০ দিনে ৪৫%-৫০% বেড়ে গিয়েছে রোগীর সংখ্যা।

ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বেশ কিছু শহরে সংক্রমণের হার উল্লেখজনক হারে বাড়ল। ১৫টি শহরের এই তালিকায় রয়েছে গুরুগ্রাম, ফরিদাবাদ, ভদোদরা, সোলাপুর ও গুয়াহাটি, যেখানে গত ১০ দিনে ৪৫%-৫০% বেড়ে গিয়েছে রোগীর সংখ্যা।

এর পাশাপাশি, রাজস্থানের ভরতপুর ও নাগাউর, ছত্তিশগড়ের রায়গড়, উত্তর প্রদেশের আগ্রা, ফরিদাবাদ ও লখনউ, মধ্য প্রদেশের ভোপাল, ইন্দওর ও উজ্জয়িনী এবং মহারাষ্ট্রের নাগপুর শহরে উদ্বেজনক ভাবে রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। তার জেরে সংক্রমণ ঠেকাতে কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন।

শনিবার গুরুগ্রামে ৩২টি নতুন কন্টেনমেন্ট জোন ঘোষণা করেছে হরিয়ানা সরকার এবং মধ্য প্রদেশ প্রসাসন ভোপাল ও ইন্দওরে করোনা পরীক্ষার হার বাড়িয়েছে। গত চার দিনে এই দুই শহরে যথাক্রমে ১৬৩ ও ১৪৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। 

নাগপুরে হটস্পটের সংখ্যা বাড়িয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার, যেখানে গত দুই দিনে একশোর বেশি মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। 

সারা ভারতের করোনা আক্রান্তের মধ্যে ৬৩% এই ১৫ শহরের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। তেমনই মহারাষ্ট্রের মোট আক্রান্তের ৫৪.৭৩% মুম্বইবাসী, তমিল নাডুর ৭০% আক্রান্ত চেন্নাইয়ের বাসিন্দা এবং গুজরাতের ৭০.৮৬% রোগী আমদাবাদের অধিবাসী। 

সারা দেশের হিসাবে সবচেয়ে বেশি ১৮% করোনা রোগী মহারাষ্ট্রের, তার পরে ১২.২২% দিল্লির এবং তৃতীয় স্থানে ৯.৬৫% রোগী তামিল নাডুর বাসিন্দা।

 

বন্ধ করুন