বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘গডসে জিন্দাবাদ’ বলে দেশকে লজ্জিত করা হচ্ছে, গান্ধী জয়ন্তীতে ক্ষোভ BJP সাংসদের
বরুণ গান্ধী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
বরুণ গান্ধী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

‘গডসে জিন্দাবাদ’ বলে দেশকে লজ্জিত করা হচ্ছে, গান্ধী জয়ন্তীতে ক্ষোভ BJP সাংসদের

মহাত্মা গান্ধীর জন্মজয়ন্তীতে টুইটারে ট্রেন্ড হয়েছে ‘গডসে জিন্দাবাদ’। তা নিয়ে তীব্র ক্ষোভপ্রকাশ করলেন। 

মহাত্মা গান্ধীর জন্মজয়ন্তীতে টুইটারে ট্রেন্ড হয়েছে ‘গডসে জিন্দাবাদ’। তা নিয়ে তীব্র ক্ষোভপ্রকাশ করলেন বিজেপি সাংসদ বরুণ গান্ধী। তাঁর দাবি, যাঁরা গান্ধী হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে মহিমান্বিত করছেন, তাঁরা আদতে দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে দেশের বদনাম করছেন। লজ্জিত করছেন দেশকে।

শনিবার টুইটারে বিজেপি সাংসদ বলেন, ‘আধ্যাত্মিক দিক থেকে ভারত চিরকালই শক্তিমান। মহাত্মা গান্ধীর হাত ধরেই সেই আধ্যাত্মিকতার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপিত হয়েছে। তিনিই আমাদের নৈতিক কর্তৃত্ব তৈরি করে দিয়েছেন। যা আজও আমাদের সবথেকে বড় শক্তি। যাঁরা গডসে জিন্দাবাদ টুইট করছেন, তাঁরা দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে দেশকে লজ্জিত করছেন।’ সেইসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের পিলভিটের সাংসদকে উদ্ধৃত করে সংবাদংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, যাঁরা ‘গডসে জিন্দাবাদ’ বলছেন, তাঁদের নাম সকলের সামনে আনা উচিত এবং জনসমক্ষে তাঁদের লজ্জিত করা উচিত। ‘উন্মাদ’ অংশকে সমাজের মূলস্রোতে যাতে ঢুকতে না দেওয়া হয়, সেই দাবিও বরুণ তোলেন বলে পিটিআই জানিয়েছে।

গান্ধীজির জন্মজয়ন্তীর উপলক্ষ্যে শনিবার সকাল থেকেই 'নাথুরাম গডসে জিন্দাবাদ' হ্যাশট্যাগ টুইটারে ট্রেন্ড হতে থাকে। যে গডসে ১৯৪৮ সালের ৩০ জানুয়ারি গান্ধীজিকে হত্যা করেছিল। নেটিজেনদের একাংশ সেই হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে টুইট করেছিলেন। এমনিতে একটি অংশের তরফে গান্ধী হত্যাকারী গডসের স্তুতি করা হয়ে থাকে। বিশেষত ডানপন্থী সংগঠনগুলির একাংশ গডসের প্রশংসা করে থাকেন। যে প্রবণতা গান্ধীজির জন্মজয়ন্তী, তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীর দিন বেশি নজরে পড়ে।

বন্ধ করুন