বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌কুম্ভে স্নান করলে করোনা হওয়া উচিত নয়’, দাবি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর
‘‌কুম্ভে স্নান করলে করোনা হওয়া উচিত নয়’, দাবি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
‘‌কুম্ভে স্নান করলে করোনা হওয়া উচিত নয়’, দাবি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

‘‌কুম্ভে স্নান করলে করোনা হওয়া উচিত নয়’, দাবি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর

  • উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, কুম্ভমেলায় স্নান করলে তো তার করোনা হওয়া উচিত নয়।

আবারও বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তিরথ সিং রাওয়াত। তাঁর মতে, কুম্ভে স্নান করলে করোনাভাইরাস হওয়া উচিত নয়। সারা দেশে যখন করোনা সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে, তখন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্য ফের বিতর্ক তৈরি করেছে।

কুম্ভে শাহি স্নানের জন্য জড়ো হয়েছেন প্রায় ২৮ লাখ মানুষ। কাতারে কাতারে মানুষ আসছেন পুণ্য স্নান করতে। এই পরিস্থিতিতে গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তরাখণ্ডে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩,০০০-এর বেশি মানুষ। পাশের উত্তরপ্রদেশেও একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮,০০০-এর বেশি মানুষ। এই পরিস্থিতিতে আরও বেশি করে করোনা বিধি মানা যেখানে প্রয়োজন, সেখানে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, কুম্ভমেলায় স্নান করলে তো তার করোনা হওয়া উচিত নয়।

এই ধরনের মন্তব্য অবশ্য তাঁর নতুন নয়। এর আগেও উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী এই ধরনের মন্তব্য করেছেন। গত ২০ মার্চ মেলা শুরুর আগে তিনি মন্তব্য করেছিলেন, মেলা তো সবার জন্য। এতে তো কোনও বিধি নিষেধের প্রয়োজন নেই। সেই সঙ্গে তিনি যে মাস্ক পরারও পক্ষপাতী নন, সেকথাও অকপটে জানিয়ে দিয়েছিলেন রাওয়াত। তাঁর মতে, ভগবানের উপর যদি আস্থা থাকে, তাহলে ভাইরাস কিছু করতে পারবে না। করোনা কোনও কিছু আটকে রাখতে পারবে না। মুখ্যমন্ত্রী নিজেও মেলায় অংশ নিয়েছিলেন। এরইমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে যান। এখন অবশ্য সেরেও উঠেছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়ার পর থেকেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসনের কর্তারা। কেন্দ্রের তরফেও করোনা বিধি ঠিকভাবে পালন করার কথা জানানো হয়।

তবে করোনা বিধি ঠিকভাবে পালন করতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয় পুলিশদের।আই জি সঞ্জয় গুঞ্জল জানান, হরিদ্বারের হর কি পৌরী ঘাটে এমনই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, করোনা বিধি মেনে যদি সামাজিক দুরত্ব মেনে চলা হয়, তাহলে পদপিষ্টের মতো অবস্থা হয়।এত লোকের জমায়েত হয়েছে যে কোনও অবস্থাতেই সামাজিক দুরত্ব মেনে চলা সম্ভব নয়। প্রশ্ন উঠছে, করোনা সংক্রমণ যদি এবারে হাতের বাইরে বেরিয়ে যায়, তাহলে তার দায় কে নেবেন? 

বন্ধ করুন