বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > TMC Goa: লুইজিনহো ফেলেইরোকে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে বলল তৃণমূল!‌ গোয়ায় কী নিয়ে গণ্ডগোল?
তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ লুইজিনহো ফেলেইরো (PTI)

TMC Goa: লুইজিনহো ফেলেইরোকে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে বলল তৃণমূল!‌ গোয়ায় কী নিয়ে গণ্ডগোল?

  • গোয়া বিজেপি শাসিত রাজ্য। সেখানে এখন নানা ইস্যুতে আন্দোলন করে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের প্রচার সেখানে করা হচ্ছে। কিন্তু ফেলেইরোকে সেসব কর্মসূচিতে পাওয়া যাচ্ছে না। এই প্রেক্ষাপটেই ফেলেইরোকে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

তৃণমূল কংগ্রেসের কি একটি সাংসদ পদ কমতে চলেছে?‌ জাতীয় রাজনীতির অলিন্দে এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। কে এই সাংসদ?‌ না, জহর সরকার নয়। তিনি তৃণমূল কংগ্রেসেই থাকছেন এবং ছেড়ে যাচ্ছেন না বলে টুইট করে জানিয়েছেন। সূত্রের খবর, এই সাংসদের নাম লুইজিনহো ফেলেইরো। তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ। আর তাঁকেই সাংসদ পদ ছাড়তে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ লুইজিনহো ফেলেইরোর কার্যকলাপ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে দলের অন্দরেই। তাঁকে কোনওভাবেই দলের কর্মসূচিতে পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ। এমনকী সামাজিক মাধ্যমেও তিনি নিশ্চুপ। লুইজিনহোর সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের একটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে বলে সূত্রের খবর। এর আগে তাঁকে গোয়া তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ঠিক কী জানা যাচ্ছে?‌ লুইজিনহো ফেলেইরো গোয়ার নেতা। তিনি ২০২১ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। তৃণমূল কংগ্রেস সম্মান দিয়েই তাঁকে স্বাগত জানায়। এমনকী বাংলা থেকে রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হন তিনি। তাঁর উপর ভর করেই গোয়া বিধানসভা নির্বাচনে পুরোদস্তুর ঝাঁপিয়ে পড়ে তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু সেভাবে তাঁকে পাওয়া যায়নি বলে তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ গোয়া বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাননি ফেলেইরো। তখন থেকেই তাঁর সঙ্গে দূরত্ব বেড়ে গিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। তিনি নিজে থেকে আর কোনও কর্মসূচিতে উদ্যোগ দেখাননি। গত ৭ সেপ্টেম্বর গোয়া তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটি ঘোষণা করা হয়। তাতে রাজ্যের দু’জনকে যুগ্ম–আহ্বায়ক করা হয়। বেশ কয়েকজন পদাধিকারীদের নাম পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণভাবে ওই তালিকায় নাম নেই লুইজিনহো ফেলেইরোর। গোয়া তৃণমূল কংগ্রেসের যুগ্ম–আহ্বায়ক সামিল ভলভাইকার ও মারিয়ানো রডরিগেস বলেন, ‘‌দল সকলের সঙ্গে আলোচনা করেই কমিটি ঘোষণা করেছে। আমরা কাউকে মিস করছি না। গোয়ার মানুষের জন্য তৃণমূল কংগ্রেস লড়াই চালিয়ে যাবে।’‌

এখন কী পরিস্থিতি কোঙ্কন উপকূলে?‌ গোয়া বিজেপি শাসিত রাজ্য। সেখানে এখন নানা ইস্যুতে আন্দোলন করে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের প্রচার সেখানে করা হচ্ছে। কিন্তু ফেলেইরোকে সেসব কর্মসূচিতে পাওয়া যাচ্ছে না। এই প্রেক্ষাপটেই ফেলেইরোকে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেতা বলেন, ‘‌বিবেক থাকলে ফেলেইরো সবকিছু অনুধাবন করুন। দল তাঁকে যোগ্য সম্মান দিয়েছে। বাকিটা ওনারই বোঝা দরকার।’‌

বন্ধ করুন