বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌ত্রিপুরার জন্য তৃণমূল’‌, জনসংযোগ প্রচারে নামছে ঘাসফুল শিবির
সুস্মিতা দেব
সুস্মিতা দেব

‘‌ত্রিপুরার জন্য তৃণমূল’‌, জনসংযোগ প্রচারে নামছে ঘাসফুল শিবির

  • রাজ্যসভার সাংসদ সুস্মিতা দেব জানান, ‘‌ত্রিপুরায় ৫৯টি ব্লক আছে ও ১৬টি পুর এলাকা রয়েছে। এই ব্লক ও পুর এলাকাতে আগামীকাল বা পরশু থেকে আমরা জনসংযোগের কর্মসূচি করতে যাচ্ছি।

‌ত্রিপুরায় জনসংযোগ তৈরির লক্ষ্যে এবার ময়দানে নামছে তৃণমূল। ‘‌ত্রিপুরার জন্য তৃণমূল’‌ নামে নতুন এই কর্মসূচি শুরু করতে চলেছে ত্রিপুরার দায়িত্বে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা। তৃণমূলের এই জনসংযোগ প্রচারের জন্য কলকাতা থেকে পাঠানো হয়েছে তৃণমূলের লোগো লাগানো গাড়ি। বিধানসভা ভোট পাখির চোখ করে তৃণমূলের এই উদ্যোগ রাজনৈতিক দিক থেকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার আগরতলায় তৃণমূলের স্টিয়ারিং কমিটির প্রথম বৈঠক ছিল। আগরতলার একটি হোটেলে কমিটির এই প্রথম বৈঠকে হাজির ছিলেন কমিটির আহ্বায়ক সুবল ভৌমিক, রাজ্যসভার সাংসদ সুস্মিতা দেব, আশিসলাল সিং, শর্মিষ্ঠা দেব সরকার সহ অন্যান্যরা। প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে এই বৈঠক চলে। আগামী দিনে ত্রিপুরার রাজনীতিতে তৃণমূলের রণকৌশল কী হবে, তা নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা হয়। 

বৈঠকের পর সাংবাদিক সম্মেলন করে রাজ্যসভার সাংসদ সুস্মিতা দেব জানান, ‘‌ত্রিপুরায় ৫৯টি ব্লক আছে ও ১৬টি পুর এলাকা রয়েছে। এই ব্লক ও পুর এলাকাতে আগামীকাল বা পরশু থেকে আমরা জনসংযোগের কর্মসূচি করতে যাচ্ছি। এই কর্মসূচির স্লোগান হল ‘‌ত্রিপুরার জন্য তৃণমূল’‌। স্টিয়ারিং কমিটি ও যুব কমিটির সদস্যরা প্রতিটি ব্লক এলাকায় যাবে। সেখানে গিয়ে আগামীদিনে ত্রিপুরা রাজ্যের উন্নয়নের জন্য যে ভিশনটা রয়েছে, তা প্রচার করাই আমাদের উদ্দেশ্য।’‌

 

তৃণমূল সূত্রে খবর, দলের এই জনসংযোগ কর্মসূচি সফল করতে তিনটি ভাগে ভাগ হয়ে দলের এই নেতা ও কর্মীরা পৌঁছে যাবেন বিভিন্ন এলাকায়। এর জন্য কলকাতা থেকে ত্রিপুরায় পাঠানো হয়েছে ১০টি তৃণমূলের লোগো লাগানো নীল সাদা গাড়ি। এই গাড়িতে করে গ্রামে প্রত্যন্ত এলাকায় কৃষক থেকে শুরু করে শহরে বসবাসকারী মানুষের সঙ্গে কথা বলবেন তৃণমূলের নেতা ও কর্মীরা। সেখানেই তুলে ধরা হবে পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন সরকারের নেওয়া বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্প। কিছুদিন আগে ত্রিপুরায় তৃণমূলের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বৈঠকে পুরোদমে জনসংযোগের কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ার কথা জানিয়েছিলেন তিনি।

 

বন্ধ করুন