বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > স্কুলের পাশের দোকানের কাকুই কুকর্ম করত! ১৫জন ছাত্রীর নালিশ, গ্রেফতার ১
চেন্নাইয়ের এক মুদিখানার দোকানের মালিকের বিরুদ্ধে একের পর এক স্কুলছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠছে। প্রতীকী ছবি (HT_PRINT)

স্কুলের পাশের দোকানের কাকুই কুকর্ম করত! ১৫জন ছাত্রীর নালিশ, গ্রেফতার ১

  • আরও ১৪জন ছাত্রী স্কুলের শিক্ষিকার কাছে নালিশ করে জানায়, তাদের সঙ্গেও একই ব্যবহার করেছেন ওই মুদিখানার দোকানের মালিক। এরপর প্রধানশিক্ষিকা গোটা ঘটনার কথা পুলিশকে জানান। এরপর রবিবার পুলিশ ওই মুদিখানার দোকানের মালিককে গ্রেফতার করে।

তামিলনাড়ুর এক মুদিখানার দোকানের মালিকের বিরুদ্ধে একের পর এক স্কুলছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠছে। ৬২ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ৯-১৩ বছর বয়সী অন্তত ১৫জন স্কুল ছাত্রীকে যৌন হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। দীর্ঘ চার বছর ধরে তিনি স্কুলের মেয়েদের সঙ্গে এই কুকর্ম চালাতেন বলে অভিযোগ। কীভাবে ধরা পড়ল বিষয়টি?

কোয়েম্বাটুর গ্রামীণ পুলিশের তরফে গত জুন মাসে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছিল। মূলত শিশুদের সঙ্গে কোনও অপরাধ হচ্ছে কি না সেটাই যাচাই করার উদ্যোগ নিয়েছিল পুলিশ। সেই সময় গত শনিবার একজন স্কুলছাত্রী প্রধানশিক্ষিকার কাছে অভিযোগ করে যে ওই মুদিখানার দোকানের মালিক নানা সময় তাদের যৌন হেনস্থা করেছে। ওই দোকানের মালিকের নাম নটরাজন। কোয়েম্বাটুরের আনাইমালাই এলাকায় স্কুলের পাশেই তার দোকান।

এদিকে আরও ১৪জন ছাত্রী স্কুলের শিক্ষিকার কাছে নালিশ করে জানায়, তাদের সঙ্গেও একই ব্যবহার করেছেন ওই মুদিখানার দোকানের মালিক। এরপর প্রধানশিক্ষিকা গোটা ঘটনার কথা পুলিশকে জানান। এরপর রবিবার পুলিশ ওই মুদিখানার দোকানের মালিককে গ্রেফতার করে।

কোয়েম্বাটুর রুরাল সুপারিন্টেডেন্ট অফ পুলিশ ভি বদ্রিনারায়ণ জানিয়েছেন, পসকো আইন ছাড়াও একাধিক ধারায় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।

তবে এভাবে স্কুলের পাশের মুদিখানার দোকানের মালিকের বিরুদ্ধে এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে স্বাভাবিকভাবেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। 

 

বন্ধ করুন