বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Human Bone Powder: গর্ভধারণ করতে না পারায় মানব হাড়ের গুঁড়ো খাওয়ানো হল বধূকে! আটক স্বামী সমেত একাধিক

Human Bone Powder: গর্ভধারণ করতে না পারায় মানব হাড়ের গুঁড়ো খাওয়ানো হল বধূকে! আটক স্বামী সমেত একাধিক

সন্তান প্রসবের চাপ দিয়ে কুসংস্কারে মহিলাকে খাওয়ানো হল মানুষের হাড়ের গুঁড়ো। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

অভিযোগকারী মহিলা শিক্ষাগত যোগ্যতায় একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। তাঁর অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই তাঁর ওপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার করা হত। বিয়ের পর থেকেই তাঁর কাছ থেকে টাকা ও অন্যান্য জিনিস চাওয়া হত। তাঁর অভিযোগ, বাড়ির আর্থিক সংকট ও তাঁর সন্তানধারণ না করতে পারার জন্য প্রতি অমাবস্যাতেই কিছু না কিছু ব্ল্যাক ম্যাজিক করা হত বাড়িতে।

লক্ষ্য ছিল সন্তানের গর্ভধারণ করতে হবে পুত্রবধূকে। আর বাড়ির পুত্রবধূটি তা করতে পারছিলেন না বলে অভিযোগ। বিয়ে হয়েছিল ২০১৯ সালে, এরপর কোভিডে সংসারে আর্থিক অনটন আসে। সেই আর্থিক অনটন কাটাতে ও সংসারে সন্তানের আগমন চেয়ে বাড়ির পুত্রবধূটিতে মানব হাড়ের গুঁড়ো খাওয়ানর অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। ব্ল্যাক ম্যাজিক ও কুসংস্কারের বশবর্তী হয়ে এই ঘৃণ্য ঘটনা ঘটে গিয়েছে পুনেতে।

পুনের সিংহাবাদ রোডের পুলিশের কাছে দায়ের হয়েছে অভিযোগ। অভিযোগ দায়ের হয়েছে ২৮ বছরের পুত্রবধূটির তরফে। এরপর তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৮(এ), ৩২৩,৫০৪,৫০৬/২, ৩৪ ধারায় দায়ের হয়েছে মামলা। আটক করা হয়েছে অভিযুক্ত স্বামী ও শ্বশুর শাশুড়িকে। এই দণ্ডবিধিতে অঘোরি প্রথার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। জানা গিয়েছে, অভিযোগকারী মহিলা শিক্ষাগত যোগ্যতায় একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। তাঁর অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই তাঁর ওপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার করা হত। বিয়ের পর থেকেই তাঁর কাছ থেকে টাকা ও অন্যান্য জিনিস চাওয়া হত। তাঁর অভিযোগ, বাড়ির আর্থিক সংকট ও তাঁর সন্তানধারণ না করতে পারার জন্য প্রতি অমাবস্যাতেই কিছু না কিছু ব্ল্যাক ম্যাজিক করা হত বাড়িতে। অভিযোগে জানানো হযেছে, এমনই এক কাণ্ডের জন্য তাঁদের এক আত্মীয়ের বাড়িতে আনা হয়েছিল মানব হাড়। সঙ্গে ছিল আরও কিছু ভয়ানক সামগ্রী।

অত্যাচারের শিকার বধূর দাবি, সেই হাড় গুঁড়ো করে তাঁকে খেতে বলা হয়েছিল। মুহূর্তে তা অস্বীকার করেন মহিলা। অভিযোগ, এরপরই তাংর দিকে রিভলভার তাক করা হয়। বন্দুকের নলের মুখে তাঁকে জোর করে মানব হাড়ের গুঁড়ো খেতে বলা হয়। মহিলার অভিযোগ, এমন ঘটনা বহুবার আগেও হয়েছে। এরপর তিনি আর থাকতে না পেরে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন। এছাড়াও রাজ্য মহিলা কমিশনেরও দ্বারস্থ হন। অভিযোগ তাঁকে, বহুবার শ্বশুরবাড়িতে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করা হয়েছে। তবে সব কিছু ছাপিয়ে এভাবে মানব হাড়ের গুঁড়ো খাওয়ানোর ঘটনার শিকার হতেই পুলিশের দ্বারস্থ হন মহিলা।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন