বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কাশ্মীরে খতম শীর্ষ হিজবুল কমান্ডার, গত ৩ দিনে শুধুমাত্র কুলগামেই নিকেশ ৬ জঙ্গি
কুলগামে সেনার হাতে খতম হিজবুলকমান্ডার (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (HT_PRINT)
কুলগামে সেনার হাতে খতম হিজবুলকমান্ডার (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (HT_PRINT)

কাশ্মীরে খতম শীর্ষ হিজবুল কমান্ডার, গত ৩ দিনে শুধুমাত্র কুলগামেই নিকেশ ৬ জঙ্গি

  • কুলগাম জেলার আসমুজি গ্রামে একটি অভিযানে হিজবুল মুজাহিদিনের জেলা কমান্ডারকে খতম করলেন নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা।

শনিবার দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাম জেলার হিজবুল মুজাহিদিনের জেলা কমান্ডারকে খতম করার দাবি করল পুলিশ। আসমুজি গ্রামে একটি কর্ডন এবং অনুসন্ধান অভিযানে এই জঙ্গিকে খতম করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। গত তিন দিনে, হিজবুল মুজাহিদিন এবং টিআরএফ-এর দুই শীর্ষ কমান্ডার সহ ছয় জঙ্গিকে পৃথক অভিযানে খতম করেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর জওযানরা। মৃত হিজবুলকমান্ডারকে মুদাসির আহমেদ ওয়াগে বলে শনাক্ত করেছে পুলিশ।

শনিবার সকালে সেনা, পুলিশ এবং সিআরপিএফ আসমুজি এলাকায় দুই জঙ্গির উপস্থিতি সম্পর্কে একটি গোপন তথ্য পায়। সেই তথ্যের ভিত্তিতে একটি কর্ডন এবং অনুসন্ধান অভিযান শুরু করেন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা। অভিযানটি এনকাউন্টারে পরিণত হয়। পরে গুলির লড়াইতে একজন জঙ্গি নিহত হয়।

পুলিশ মুখপাত্র বলেন, জঙ্গিদের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পরে অনুসন্ধান অভিযানের সময়, স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের জন্যও বার্তা দেওয়া হয়েছিল। তবে জঙ্গিরা আত্মসমর্পণের সুযোগ প্রত্যাখ্যান করে এবং নিরাপত্তা বাহিনীর উপর নির্বিচারে গুলি চালাতে শুরু করে। জওয়ানরা এর পাল্টা জবাব দিলে অভিযানটি এনকাউন্টারে পরিণত হয়। তাতে দেবসারের মুদাসির আহমেদ ওয়াগে নিহত হয়েছে।

নিহত ওয়াগে এ প্লাস শ্রেণীভুক্ত জঙ্গি ছিল। বর্তমানে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনের জেলা কমান্ডার ছইল সে। পুলিশের তরফে বলা হয়, 'ওয়াগে ২০১৮ সাল থেকে সক্রিয় ছিল। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ সহ অপরাধমূলক উপাদান উদ্ধার করা হয়েছে।' এর আগে বুধবার, দুটি পৃথক সংঘর্ষে কুলগাম জেলার পম্বে এবং গোপালপোরা গ্রামে বাহিনী পাঁচজন স্থানীয় জঙ্গিকে হত্যা করেছে।

 

বন্ধ করুন