বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্য, অখিলেশ ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে উদ্ধার ১৭৭ কোটি!
অখিলেশ ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে উদ্ধার ১৭৭ কোটি (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (HT_PRINT)

ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্য, অখিলেশ ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে উদ্ধার ১৭৭ কোটি!

  • অভিযুক্ত ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনের নামে ৪০টি সংস্থা নথিভুক্ত রয়েছে। যার মধ্যে ২টি রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে।

প্রস্তুতকারক ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনের বাড়ি থেকে উদ্ধার হলমোট ১৭৭ কোটি টাকা। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ইনডিরেক্ট ট্যাক্সেস অ্যান্ড কাস্টমসের দল গতকাল অভিযান চালায় অখিলেশ ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত এই ব্যবসায়ীর বাড়িতে। সম্প্রতি পীযূষ জৈন বাজারে এনেছিলেন 'সমাজবাদী পারফিউম'। এরপরই তাঁর বিরুদ্ধে করফাঁকির অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই এই তল্লাশি অভিযান চালানো হয়েছিল। আর সেই অভিযানে মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো পরিমাণ অর্থ বাজেয়াপ্ত করল সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ইনডিরেক্ট ট্যাক্সেস অ্যান্ড কাস্টমস। 

জৈনের বাড়ি ছাড়াও তাঁর কারখানা, দফতর, কোল্ডস্টোর, পেট্রোল পাম্পে তল্লাশি চালায় আয়কর দফতর। কানপুর ছাড়াও মুম্বইতে পীযূষ জৈনের বাসভবনে ব্যাপক তল্লাশি চলে। এই নামী ব্যবসায়ী বর্তমানে কানপুরের বাসিন্দা হলেও, তাঁর একটি কারখানা , কোল্ড স্টোর ও পেট্রোল পাম্প রয়েছে কনৌজে। সেখানেও চলে তল্লাশি। জানা যায়, কানপুরে বসবাসের আগে কনৌজে বহুদিন থেকেছেন এই ব্যবসায়ী। সূত্রের খবর পীযূষ জৈনের নামে ৪০টি সংস্থা নথিভুক্ত রয়েছে। যার মধ্যে ২টি রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে। তদন্তকারী দল সূত্রের খবর ভুয়ো সংস্থার নাম দেখিয়ে ওই ব্যবসায়ী প্রচুর টাকার করফাঁকি দিতেন। 

এদিকে এই অভিযানের প্রেক্ষিতে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ইনডিরেক্ট ট্যাক্সেস অ্যান্ড কাস্টমসের চেয়ারম্যান বিবেক জোহরি জানান, জৈন কর ফাঁকি দিয়ে ব্যবসা করছিলেন বলে অভিযোগ আসে। সেই অনুযায়ী তল্লাশি চালানো হয়৷ তখনই এই বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধার করা হয়৷ তাছাড়া জাল বিল দিয়ে ব্যবসা করা হচ্ছিল বলেও অভিযোগ আসে৷ সেই সংক্রান্তও কিছু নথি পাওয়া গিয়েছে বলে খবর৷ এর সঙ্গে আরও অনেকে জড়িত আছে বলে জানিয়েছেন বিবেক জোহরি৷ শুধুমাত্র পীযূষ জৈনের বাড়ি বা দফতরই নয়, এক পানমশলা সংস্থার মালিক ও এক ট্রান্সপোর্টারের বিভিন্ন দফতরে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়েছিল গতকাল। 

বন্ধ করুন