বাড়ি > ঘরে বাইরে > আটপৌরে ভেষজ ওষুধেই করোনাযুদ্ধে সাফল্য, দাবি চিনের
করোনা সংক্রমণ সারাতে ৯২% রোগীর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে পরম্পরাগত চিনা দাওয়াই, দাবি বেজিংয়ের। 
করোনা সংক্রমণ সারাতে ৯২% রোগীর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে পরম্পরাগত চিনা দাওয়াই, দাবি বেজিংয়ের। 

আটপৌরে ভেষজ ওষুধেই করোনাযুদ্ধে সাফল্য, দাবি চিনের

  • পরম্পরাগত চিনা দাওয়াইয়ের সাহায্যেই করোনা সংক্রমণ সারাতে সাফল্য়েয এসেছে বলে দাবি চিনের।

চিনে করোনা সংক্রমণ সারাতে ৯২% রোগীর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে পরম্পরাগত চিনা দাওয়াই (TCM)। রবিবার চিনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তথ্য দফতর প্রকাশিত Fighting COVID-19: China in Action শীর্ষক শ্বেতপত্রে এমনই দাবি করা হয়েছে।

শ্বেতপত্রে বলা হয়েছে, ‘TCM-এর ভিত্তিতে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা পদ্ধতির সাহায্যে সমগ্র স্বাস্থ্য নীতি, মৃদু, মাঝারি ও তীব্র এবং সংকটপূর্ণ রোগীর চিকিৎসা ও তাঁদের সারিয়ে তোলার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। চিনা ভেষজ ফর্মূলা ও ওষুধ করোনা আক্রান্ত ৯২% রোগীর ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়েছে।’

বলা হয়েছে, চিনে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ দেখা দেওয়া হুবেই প্রদেশের ৯০%  রোগীকে TCM পদ্ধতিতে চিকিৎসা করা হয়েছে এবং সাফল্য মিলেছে।

শ্বেতপত্রে আরও দাবি করা হয়েছে যে,  প্রথাগত চিকিৎসা পদ্ধতি প্রয়োগের ফলে জীবাণু সংক্রমণের হারল কমেছে, মৃদু সংক্রমণে আক্রান্তদের শারীরিক পরিস্থ্িতির উন্নয়ন ঘটেছে, সেরে ওঠা রোগীর সংখ্যা বেড়েছে, মৃত্যুর হার কমেছে, নিউক্লিক অ্যাসিড নেগেটিভ করতে সাহায্য করেছে এবং Covid-19 রকোগীদের দ্রুত পুনর্বাসনে সহায়ক হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে হুবেই প্রদেশের উহান শহরেই প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়। এর পর গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে এই শ্বাসকষ্ট জনিত রোগ। 

বর্তমানে চিনে ৮৪,১৯১ জন করোনা রোগী রয়েছেন। সাম্প্রতিক হিসেবে করোনায় মৃতের মোট সংখ্যা সে দেশে ৪,৩৬৮। এই তথ্য জানিয়েছে আমেরিকারক জন হপকিন্স বিশ্বববিদ্যালয়ের করোনাভাইরাস ট্র্যাকার। 

 

বন্ধ করুন