বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Train Passenger Stripped and Beaten: ট্রেনে জামাকাপড় খুলিয়ে বেল্ট দিয়ে মার, দাড়ি ধরে টান রেলযাত্রীর, ভাইরাল ভিডিয়ো

Train Passenger Stripped and Beaten: ট্রেনে জামাকাপড় খুলিয়ে বেল্ট দিয়ে মার, দাড়ি ধরে টান রেলযাত্রীর, ভাইরাল ভিডিয়ো

ট্রেনে জামাকাপড় খুলিয়ে বেল্ট দিয়ে মার, দাড়ি ধরে টান রেলযাত্রীর

পুলিশ জানায়, মহিলা যাত্রীকে উত্তক্ত করার অভিযোগে সেই ব্যক্তিকে মারা হয়েছিল। এদিকে ঘটনায় জিআরপির তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ, ১০ থেকে ১১ জন মিলে সেই ব্যক্তিকে মারধর করেছিল।

এক মহিলাকে উত্তক্ত করার অভিযোগে এক রেলযাত্রীকে ট্রেনেই কাপড় খুলিয়ে বেল্ট দিয়ে বেধড়ক মার অন্য যাত্রীদের। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে। ইতিমধ্যেই ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। জানা গিয়েছে, পদ্মাবত এক্সপ্রেসে ঘটনাটি ঘটে। এদিকে অভিযোগ উঠেছে, যে আক্রান্ত ব্যক্তিকে জোর করে ধর্মীয় স্লোগান দিতে বাধ্য করা হয়েছিল। যদিও সেই দাবি মিথ্যে বলে জানা যায়। পরে পুলিশ জানায়, মহিলা যাত্রীকে উত্তক্ত করার অভিযোগে সেই ব্যক্তিকে মারা হয়েছিল। এদিকে ঘটনায় জিআরপির তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ, ১০ থেকে ১১ জন মিলে সেই ব্যক্তিকে মারধর করেছিল। (আরও পড়ুন: পোষা কুকুরের থেকে বাঁচতে তিনতলা থেকে ঝাঁপ, মর্মান্তিক মৃত্যু ফুড ডেলিভারি বয়ের )

এদিকে জিআরপির কাছে আক্রান্ত ব্যক্তি অভিযোগে দাবি করেছিলেন যে তাঁকে জোর করে 'জয় শ্রীরাম' বলানো হয়েছিল। অভিযোগ, আক্রান্ত ব্যক্তির দাড়ি ধরেও টানা হয়েছিল। ঘটনাটি গত ১২ ডিসেম্বর ঘটে বলে জানা গিয়েছে। তবে জিআরপির তরফে জানানো হয়েছে, ঘটনার সঙ্গে কোনও সাম্প্রদায়িক ঘৃণার কোনও যোগ নেই। জিআরপি সিও দেবী দয়াল বলেন, 'আক্রান্ত ব্যক্তি দিল্লি থেকে মোরাদাবাদে যাচ্ছিলেন। রাত ১১টার দিকে ট্রেনটি হাপুরে পৌঁছালে ১০ থেকে ১১ জন লোক কোচে ঢুকে তাকে মারধর করে বলে অভিযোগ।'

আরও পড়ুন: 'বাবা হারানোর পর চাকরি...', ভাইরাল অ্যামাজন কর্মীর পোস্ট, অফিস জুড়ে কান্নাকাটি

আক্রান্ত রেলযাত্রীর বয়ানের ভিত্তিতে একটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। জিআরপি সিও বলেছেন, আক্রান্তের 'জয় শ্রী রাম' স্লোগান দিতে বাধ্য করা এবং তাঁর দাড়ি টেনে দেওয়ার অভিযোগ তদন্তে মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে। জিআরপি সিও সংবাদ সংস্থা এএনআইকে বলেন, 'ভিডিয়ো ক্লিপটি পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। এবং একটি প্রাথমিক তদন্তের পর দেখা গিয়েছে, এটি ঘৃণামূলক অপরাধ নয়। এই সংক্রান্ত যাবতীয় অভিযোগটি মিথ্যা বলে জানতে পেয়েছি আমরা। আক্রান্তের দাড়ি ধরে টানা হয়নি এবং তাঁকে ধর্মীয় স্লোগান দিতেও বাধ্য করা হয়নি।' জিআরপি কর্তা আরও বলেন, 'ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, ট্রেনে থাকা একজন মহিলাকে হয়রানি করা হয়েছে। কিন্তু সেই মহিলা অভিযোগ জানাতে এগিয়ে আসেননি। অভিযোগ দায়ের হলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।'

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন