বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সিপিআইএম–বিজেপির সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ত্রিপুরা, দুই পুলিশকর্মী–সহ গুরুতর জখম ৫
সিপিআইএমের সঙ্গে বিজেপির লড়াই তুঙ্গে উঠল। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
সিপিআইএমের সঙ্গে বিজেপির লড়াই তুঙ্গে উঠল। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

সিপিআইএম–বিজেপির সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ত্রিপুরা, দুই পুলিশকর্মী–সহ গুরুতর জখম ৫

  • পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, একে অন্যের বিরুদ্ধে খোয়াই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

ত্রিপুরায় যখন তৃণমূল কংগ্রেস লাগাতার আন্দোলন করে বিজেপির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে তখন সেখানে নতুন ঘটনা ঘটল। এবার সেখানে সিপিআইএমের সঙ্গে বিজেপির লড়াই তুঙ্গে উঠল। আর এই দু’‌পক্ষের সংঘর্ষে দুই পুলিশ কর্মী–সহ মোট পাঁচজন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, একে অন্যের বিরুদ্ধে খোয়াই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যেবেলায় দু’‌পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় খোয়াই জেলার এলাকা। এই ঘটনায় পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিত অভিযোগ দায়ের করেছে। তবে পুলিশ সূত্রে খবর, রাতে আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ জমা পড়েছে। খোয়াই থানার পুলিশকর্তা রাজীব সূত্রধর বলেন, ‘‌রাতে বেশ কয়েকটি অভিযোগ জমা পড়েছে। দু’‌জন পুলিশ কর্মী গুরুতর জখম হয়েছেন। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।’‌

সূত্রের খবর, লালচেরা জেলায় র‌্যালির আয়োজন করেছিল সিপিআইএম। সেখানে ১২টি দাবি নিয়ে সোচ্চার হয়েছিলেন সিপিআইএম নেতারা। সেটা শেষ করে ফেরার সময় দু’‌পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। বিজেপি প্রথমে আক্রমণ করেছিল বলে অভিযোগ। তাতে সিপিআইএমের দু’‌জন কর্মী জখম হয়েছেন বলেও অভিযোগ। বিজেপিরও একজন কর্মী জখম হয়েছেন বলে খবর।

পরিস্থিতি এতটাই অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল যে, আঘাত পেয়ে সিপিআইএম সমর্থকরা বিজেপির নির্মীয়মাণ পার্টি অফিসের দেওয়াল ভেঙে দেয়। পরিবর্তে বিজেপি তখন সিপিআইএম পার্টি অফিসে ঢুকে ভাঙচুর করে। বেশ কয়েকটি গাড়িও ভেঙেদেয় তারা। এই ঘটনা নিয়ে সিপিআইএম সম্পাদক গৌতম দাস বলেন, ‘‌আমরা বেশ কয়েকটি অভিযোগ থানায় দায়ের করেছি। আমাদের নেতা–কর্মীদের উপর আক্রমণ করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ কোনও পদক্ষেপ করেনি।’‌ বিজেপির অভিযোগ, সিপিআইএম কর্মীরাই আমাদের পার্টি অফিসের দেওয়াল ভেঙেছে।

বন্ধ করুন