বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ত্রিপুরার বাঙালি মহিলা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, আনন্দে চোখে জল প্রতিমা ভৌমিকের মায়ের
ত্রিপুরার বিজেপি সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
ত্রিপুরার বিজেপি সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

ত্রিপুরার বাঙালি মহিলা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, আনন্দে চোখে জল প্রতিমা ভৌমিকের মায়ের

  • মন্ত্রী হয়েছেন ত্রিপুরার বিজেপি সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক। ৭৪ বছরে প্রথমবার ত্রিপুরার বাসিন্দা হিসেবে কেউ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হলেন।

বাংলা থেকে চারজন বাঙালি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হয়েছেন। কিন্তু অন্য এক রাজ্য থেকেও বাঙালি সাংসদ নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন। নিশীথ প্রামাণিক, সুভাষ সরকার, জন বারলা, শান্তনু ঠাকুরের পাশাপাশি মন্ত্রী হয়েছেন ত্রিপুরার বিজেপি সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক। ৭৪ বছরে প্রথমবার ত্রিপুরার বাসিন্দা হিসেবে কেউ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হলেন। আর তাতেই ত্রিপুরাবাসী গর্বিত। এমনকী চোখের জল চলে এল প্রতিমার মা কানন ভৌমিকের। নিজের মেয়ের ছবি হাতে গর্বিত মায়ের সেই ছবি এখন নেটপাড়ায় ভাইরাল। আরও একটি বাংলা ভাষাভাষি রাজ্যের মহিলা কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই তাঁর সম্পর্কে জানতে আগ্রহী মানুষ। জানা গিয়েছে, ত্রিপুরার মানুষের মুখে তিনি দিদি বলে পরিচিত। তাঁর জন্ম পশ্চিম ত্রিপুরার বড়নারায়ণপুরে। গত তিন দশক ধরে আরএসএসের নানা গুরুদায়িত্ব পালন করেছেন। তবে তিনি কৃষক পরিবারের সন্তান। তারই পুরস্কার এই মন্ত্রিত্ব। বিজেপি মন্ত্রিসভা রদবদলে এবার গুরুত্ব দিয়েছিল আদিবাসী সমাজের প্রতিনিধি তুলে আনার দিকে। তাই এবার ঠাঁই পেয়েছেন প্রতিমা।

বাংলায় একুশের নির্বাচনে মুখ পুড়েছে বিজেপির। তা থেকে শিক্ষা নিয়ে বিজেপি চাইছে আগেই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে। তাই নির্বাচন আসন্ন রাজ্যগুলিতে বুঝেই প্রতিনিধি বাছাই করছে বিজেপি। জোর দেওয়া হচ্ছে তারুণ্যে এবং প্রান্তিক সমাজের প্রতিনিধিত্বে। ত্রিপুরার প্রথম মহিলা সাংসদ হিসেবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হয়েছেন প্রতিমা ভৌমিক। এখন ত্রিপুরার ভূমিকন্যার মন্ত্রিত্ব পাওয়া নিয়ে সেখানে জোর চর্চা চলছে।

বন্ধ করুন