মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সীতার পাণিপ্রার্থী হওয়ার জন্য তির-ধনুকের সাহায্যে লক্ষ্যভেদের পরীক্ষায় উপস্থিত হয়েছিলেন মধ্যমপাণ্ডব অর্জুন।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সীতার পাণিপ্রার্থী হওয়ার জন্য তির-ধনুকের সাহায্যে লক্ষ্যভেদের পরীক্ষায় উপস্থিত হয়েছিলেন মধ্যমপাণ্ডব অর্জুন।

সীতার স্বয়ম্বর সভায় অর্জুন! নিমেষে ভাইরাল মুখ্যমন্ত্রীর 'বৈপ্লবিক' মন্তব্য

স্বয়ম্বর সভায় সীতার পাণিপ্রার্থী হওয়ার জন্য তির-ধনুকের সাহায্যে লক্ষ্যভেদের পরীক্ষায় উপস্থিত হয়েছিলেন মধ্যমপাণ্ডব অর্জুন।

বে-ফাঁস মন্তব্যে ফের নজির গড়লেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। নারী দিবসের অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে রামায়ণ-মহাভারত গুলিয়ে ফেলে লোক হাসালেন বিজেপি নেতা।

রাজনৈতিক নেতাদের বে-ফাঁস মন্তব্য নতুন নয়। জনসভা হোক বা সাংবাদিক বৈঠকে তাঁদের মুখ ফস্কে হামেশাই ছিটবে বেরোয় নানান বিতর্কিত উক্তি। তবে অএই বিষয়ে বেশ কিছু দিন সুনাম অর্জন করেছে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। তাঁর সাম্প্রতিক সংযোজনে সমৃদ্ধ হল বিশ্ব নারী দিবসের অনুষ্ঠান।

সোমবার আগরতলায় ওই অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে বিপ্লব সভামঞ্চে দাঁড়িয়ে মহাকাব্যিক প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন। রামায়ণে সীতার স্বয়ম্বর সভার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি বলে বসেন, স্বয়ম্বর সভায় সীতার পাণিপ্রার্থী হওয়ার জন্য তির-ধনুকের সাহায্যে লক্ষ্যভেদের পরীক্ষায় উপস্থিত হয়েছিলেন মধ্যমপাণ্ডব অর্জুন।

একে মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ, তায় এ হেন রামায়ণ-মহাভারতের মহাখিচুড়ি শুনে মঞ্চে বসে থাকা অভ্যাগতদের ফ্যালফ্যাল করে বক্তার দিকে তাকিয়ে থাকতে দেখা যায়। তবে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই নিজের ভুল সংশোধন করে নেন বিপ্লব দেব। নিজস্ব সাবলীল ভঙ্গিমায় ভাষণ শেষ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

বিপ্লব দেবের এই বেফাঁস উক্তির ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়ার পরে যথা্রীতি ভাইরাল হয়েছে।

বন্ধ করুন