বাড়ি > ঘরে বাইরে > চিনের বিরুদ্ধে কথা বলার মাশুল, টুইটারের রোষে আমুল

টুইটারের রোষে আমুল। তাদের দোষ? লাদাখে চিনের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ ভাবে বিক্ষোভ দেখানো একটি কার্টুনের মাধ্যমে। কিন্তু এর জেরেই আমুলের অ্যাকাউন্ট রেস্ট্রিক্ট করে দিয়েছিল টুইটার। এই নিয়ে অনেক জলঘোলার পর অবশ্য পিছু হটেছে টুইটার। ফের আমুলের অ্যাকাউন্টের টুইট সবাই দেখতে পাচ্ছেন। কেন তাদের অ্যাকাউন্টকে টার্গেট করা হয়েছিল, সেটা জানতে টুইটারের কাছে কৈফিয়ত চেয়েছে আমুল। 

লাদাখে চিনের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে অনেক ভারতীয় দাবি তুলেছেন যে পড়শি রাষ্ট্রের মাল আর ব্যবহার করা উচিত না। তার স্বপক্ষে একটা কার্টুন বানিয়েছিল আমুল। সেখানে কালজয়ী আমুল গার্ল বলছে ড্র্যাগনের এবার বিদায় নেওয়ার পালা এসেছে। হাতে পতাকা নিয়ে আমুল গার্লের রণং দেহী মূর্তি ফুটে উঠেছে এখানে। আমুল যে ভারতের ব্র্যান্ড, সেটার ওপরেও জোর দেওয়া হয়েছে। ড্র্যাগন অর্থাত্ চিনের পিছনে টিকটকের লোগোও আছে ক্রিয়েটিভের মধ্যে। অন্যদিকে আমুল গার্লের পিছনে আছে স্ন্যাপডিলের লোগো ও আত্মনির্ভরতার থিম। এরপরেই রেসট্রিকটেড হয়ে যায় আমুলের অ্যাকাউন্ট, অর্থাত্ তাদের টুইট দেখতে পাচ্ছিলেন না কেউ। 

কেন তাদের অ্যাকাউন্ট ব্লক করা হয়েছিল, সেই নিয়ে জবাবদিহি চেয়েছে আমুল, কিন্তু এখনও কোনও উত্তর পায়নি তারা। 

এই কথা জানিয়েছেন আমুলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আর এস সোধি। তিনি বলেন যে আমুল গার্ল ট্রেন্ডিং ইস্যু নিয়ে কথা বলে। খবরের মতো দেশের মুড উঠে আসে আমুল গার্লের ক্রিয়েটিভে।সারা বিশ্বের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলে আমুল গার্ল, আমরা জানি না আচমকা তার বিরুদ্ধে কীভাবে অভিযোগ দায়ের হল, বলেন সোধি। আপাতত অবশ্য আমুলের টুইটার অ্যাকাউন্টে সমস্যা হচ্ছে না ও এই বিতর্কিত ক্রিয়েটিভকে নিজেদের পিনড টুইট করে রেখেছে সংস্থা। 

অন্যদিকে টুইটার জানিয়েছে যে নিরাপত্তার কারণেই এই কাজ করা হয়েছিল। অ্যাকাউন্টরে রক্ষা করার জন্য রিক্যাপচা দিতে হয়। টেকনিক্যাল কারণ দেখিয়ে বিতর্কিত বিষয় পাশ কাটাতে চাইছে টুইটার। অনেকেই অবশ্য এর মধ্যে চিনকে খুশি করার প্রচেষ্টা দেখতে পাচ্ছেন না। প্রসঙ্গত চিনের মতো বড় বাজারে এই মুহূর্তে ব্যবসার অনুমতি নেই টুইটারের। সেই কারণেই কী আমুলকে সেনসর করার চেষ্টা, এই প্রশ্ন করছেন নেটিজেনরা। 

 

 

 

বন্ধ করুন