বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জিওট্যাগিংয়ের গণ্ডগোলে চীনের অংশ লেহ!‌ স্বীকার করে মৌখিক ক্ষমা চাইল টুইটার
লেহ–র কার্গিল যুদ্ধ স্মৃতিস্মারক
লেহ–র কার্গিল যুদ্ধ স্মৃতিস্মারক

জিওট্যাগিংয়ের গণ্ডগোলে চীনের অংশ লেহ!‌ স্বীকার করে মৌখিক ক্ষমা চাইল টুইটার

  • কমিটির চেয়ারম্যান মিনাক্ষী লেখি হিন্দুস্তান টাইমস–কে বলেন,‌ ‘‌চীনের অংশ হিসেবে লেহকে দেখানোকে রাষ্ট্রদ্রোহ হিসেবে চিহ্নিত করা উচিত এবং তাতে অভিযুক্ত সাত বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে।’‌

লাইভ সম্প্রচারের সময় লেহকে চীনের অংশ হিসেবে দেখানোর দায়ে তথ্য সুরক্ষা বিল পর্যালোচনা করার জন্য গঠিত যৌথ সংসদীয় কমিটির (‌জেপিসি) কাছে মৌখিক ক্ষমা চাইল টুইটার। এমনই জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই। এই ঘটনায় সংসদীয় কমিটির ওই প্যানেল তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে। একইসঙ্গে এই ইস্যুতে টুইটারকে লিখিত ক্ষমা চাওয়ার জন্য একটি হলফনামা জমা দিতেও বলা হয়।

গত সপ্তাহে লেহ–র কার্গিল যুদ্ধ স্মৃতিস্মারক থেকে এক সাংবাদিক সরাসরি সম্প্রচার শুরু করলে বুঝতে পারে যে এই জায়গাটি পিপল্‌স রিপাবলিক অফ চায়না–য় অবস্থিত। লোকেশনে এমনই দেখাচ্ছে। তখনই এ নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক। এর জেরে টুইটারের চিফ এক্সিকিউটিভ জ্যাক ডরসিকে চিঠি লিখতে বাধ্য হন ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব। তিনি চিঠি–তে জানান, এ ঘটনায় সরকার অত্যন্ত ক্ষুব্ধ।

লেহকে চীনের অংশ হিসেবে দেখানোর জন্য বুধবার টুইটারের প্রতিনিধিদের সমালোচনা করে জেপিসি। এবং ওই কমিটির মতে, এই কাজ দেশদ্রোহিতার সমান। এই ঘটনায় তথ্য সুরক্ষা সম্পর্কিত আইনি সমস্যাও উঠে আসে। একইসঙ্গে এই যৌথ সংসদীয় কমিটি টুইটারের বিরুদ্ধে যথেচ্ছভাবে টুইটার অ্যাকাউন্ট মুছে দেওয়া, যখন–তখন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা–সহ তথ্য স্থানান্তর ও তথ্য কেন্দ্রগুলির ব্যাপারে বিশ্বাসযোগ্যতা ও স্বচ্ছতার অভাবের অভিযোগও তোলে।

এই কমিটির চেয়ারম্যান মিনাক্ষী লেখি হিন্দুস্তান টাইমস–কে বলেন,‌ ‘‌চীনের অংশ হিসেবে লেহকে দেখানোকে রাষ্ট্রদ্রোহ হিসেবে চিহ্নিত করা উচিত এবং তাতে অভিযুক্ত সাত বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে। এই অপরাধকে চিহ্নিত করতে এবং তা নিয়ে গভীর অসন্তোষ প্রকাশ করতেই এই কমিটি গঠন করা হয়।’‌

যদিও, টুইটার কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, এই সমস্যার সমাধান দ্রুত করা হবে। হিন্দুস্তান টাইমস–কে টুইটারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সাম্প্রতিক জিওট্যাগিং ইস্যুটি আমাদের প্রতিনিধিরা খুব দ্রুত সমাধান করেছে। আমরা এ সব নিয়ে খোলামেলা থাকতে পছন্দ করি। আমাদের কাজে স্বচ্ছতা রাখতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই সমস্যা সমাধানে যে ভাবে কাজ এগোবে সেই আপডেট আমরা নিয়মিত সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে ভাগ করে নেব।

একইসঙ্গে টুইটার জানিয়েছে, তথ্যের গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা তাঁদের পরিষেবার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তাদের পরিষেবাগুলি টুইটার ব্যবহারকারীদের বিশ্বাস অর্জনের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা বিলে মতামত জানানোর সুযোগ দেওয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছে টুইটার।

বন্ধ করুন