বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আঞ্চলিক বিমান যোগাযোগে জোর, পরিষেবার আগে চূড়ান্ত ছাড়পত্রের অপেক্ষায় ২ সংস্থা
সূত্রের খবর, ছোটো বিমান ছাড়াও পরিষেবার জন্য এটিআর ৭২ বিমান ব্যবহার করবে দুূই সংস্থা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য টুইটার)
সূত্রের খবর, ছোটো বিমান ছাড়াও পরিষেবার জন্য এটিআর ৭২ বিমান ব্যবহার করবে দুূই সংস্থা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য টুইটার)

আঞ্চলিক বিমান যোগাযোগে জোর, পরিষেবার আগে চূড়ান্ত ছাড়পত্রের অপেক্ষায় ২ সংস্থা

  • কয়েকদিন আগে উড়ান ৪.০-এর আওতায় নয়া ৭৮ টি রুটে অনুমোদন দিয়েছে অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক।

খুব শীঘ্রই দেশের মধ্যে পরিষেবা চালু করতে পারে আরও দুটি উড়ান সংস্থা। ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল অ্যাভিয়েশনের (ডিজিসিএ) চূড়ান্ত ছাড়পত্রের পর্যায়ে আছে সংস্থা দুটি। ‘দেশের আমজনতার উড়ান’-এর (উড়ান) আওতায় আঞ্চলিক যোগাযোগ প্রকল্পের আওতায় দেশের মধ্যে বিভিন্ন আঞ্চলিক রুটে পরিষেবা দিতে পারে দুটি সংস্থা।

কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের এক সূত্র ‘হিন্দুস্তান টাইমস’-কে জানান, দুটি সংস্থাই ভারতীয় এবং তারা শীঘ্রই পরিষেবা শুরু করবে বলে আশা করা হচ্ছে। মন্ত্রকের এক শীর্ষকর্তা জানান, বিগ চার্টার এবং অ্যাভিয়েশন কানেক্টিভিটি ছাড়পত্র পাওয়ার চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। তাঁর কথায়, ‘এই উড়ান সংস্থাগুলি আঞ্চলিক যোগাযোগ প্রকল্পের আওতাভুক্ত রুটের উপর নজর রাখছে।’ সূত্রের খবর, ছোটো বিমান ছাড়াও পরিষেবার জন্য এটিআর ৭২ বিমান ব্যবহার করবে দুূই সংস্থা।

ভারতের বিমান নিয়ন্ত্রক সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল অরুণ কুমার স্বীকার করেন, দুটি সংস্থাকে উড়ানের সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে। নয়া উড়ান পরিষেবা চালুর জন্য আর কোনও আবেদন জমা পড়েছে কিনা, সে বিষয়ে ডিজিসিএয়ের ডিরেক্টর জেনারেল বলেন, ‘নয়া উড়ান শুরুর জন্য আর কোনও আবেদন পড়ে নেই।’

দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পর্যায়ের শহরে সাশ্রয়ী বিমান পরিষেবার জন্য ২০১৬ সালের অক্টোবরে ‘উড়ান’ ঘোষণা করা হয়েছিল। সেই প্রকল্পের আওতায় পরের বছর এপ্রিলে প্রথম বিমান পরিষেবা শুরু হয়েছিল। তারপর থেকে উড়ান প্রকল্পে ২১৭ টি রুটে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। তারইমধ্যে কয়েকদিন আগে উড়ান ৪.০-এর আওতায় নয়া ৭৮ টি রুটে অনুমোদন দিয়েছে অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক।

তবে এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, বেঙ্গালুরুর স্টার-এয়ার ছাড়া উড়ান প্রকল্পের আওতায় আপাতত আর কোনও উড়ান সংস্থা নিয়মিত পরিষেবা দেয় না। চলতি বছরের জানুয়ারিতে সেই পরিষেবা শুরু করেছে স্টার-এয়ার।

বন্ধ করুন