বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনা আবহে নির্লজ্জ রাজনীতি, অক্সিজেন ইস্যুতে উদ্ধবকে পাল্টা তোপ পীযূষের
পীযূষ গোয়েল
পীযূষ গোয়েল

করোনা আবহে নির্লজ্জ রাজনীতি, অক্সিজেন ইস্যুতে উদ্ধবকে পাল্টা তোপ পীযূষের

  • পীযূষ গোয়েল টুইটে লেখেন, ‘উদ্ধব ঠাকরের এই রোজকার নির্লজ্জ রাজনীতি করা বন্ধ করে দায়িত্ব গ্রহণ করা উচিত।’

করোনা আবহে নির্লজ্জ রাজনীতি করছেন উদ্ধব ঠাকরে। এদিন এই ভাষাতেই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ শানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। উল্লেখ্য, অক্সিজেন সিলিন্ডারের আকাল ইস্যুতে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে অভিযোগ করেন নির্বাচনী প্রচারে শনিবার পশ্চিমবঙ্গে থাকায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেও তা পারেননি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। আর এরপরই এই নিয়ে জোর রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়।

এদিন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী টুইট বার্তায় লেখেন, 'কেন্দ্রীয় সরকার বর্তমানে সর্বোচ্চ ক্ষমতা সহকারে ১১০ শতাংশ অক্সিজেন উত্পাদন করছে। বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য বরাদ্দ অক্সিজেনও স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তাঁর (উদ্ধব ঠাকরে) এই রোজকার নির্লজ্জ রাজনীতি করা বন্ধ করে দায়িত্ব গ্রহণ করা উচিত।'

একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ভারতের মধ্যে মহারাষ্ট্র এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ পরিমাণে অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছে। আর যতটা সম্ভব সাহায্য করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিকে এই বিতর্ক তৈরি হতেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধনের সঙ্গে উদ্ধব ঠাকরের কথা হয় বলে জানা গিয়েছে। হর্ষ বর্ধন উদ্ধবকে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহের বিষয়ে আস্বস্ত করেছেন।

এর আগে উদ্ধব ঠাকরে অভিযোগ করে, প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর বাইরে আছেন, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তাঁকে এই উত্তর দেওয়া হয়েছে। আর এই অভিযোগ সামনে আসার পর হইচই পড়ে গিয়েছে দেশের রাজনীতিতে। দেশের বিভিন্ন অংশে যখন করোনা সংক্রমণ ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করছে, তখন প্রধানমন্ত্রী কীভাবে শুধু একটি রাজ্যের নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত থাকতে পারেন, বিরোধীরা সেই প্রশ্ন প্রথম থেকেই করে এসেছে। উল্লেখ্য, এর আগে অক্সিজেনের ঘাটতি ইস্যুতে কেন্দ্রকে চিঠিও লিখেছিলেন উদ্ধব ঠাকরে।

 

বন্ধ করুন