বাড়ি > ঘরে বাইরে > রাম মন্দির তৈরি হয়েছিল বৌদ্ধ বিহারের ধ্বংস্বস্তুপের ওপর, দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর
ভক্তের আর্তি মেনে অচিরেই দেশের তিন প্রধান ধর্মের তীর্থক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত হবে অযোধ্যা।
ভক্তের আর্তি মেনে অচিরেই দেশের তিন প্রধান ধর্মের তীর্থক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত হবে অযোধ্যা।

রাম মন্দির তৈরি হয়েছিল বৌদ্ধ বিহারের ধ্বংস্বস্তুপের ওপর, দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

  • দাবি নিয়ে কিছু দিনের মধ্যে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

অযোধ্যা রাম মন্দির নির্মাণের ভূমিপুজোর আগে বোমা ফাটালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামদাস আঠাওয়ালে। তাঁর দাবি, প্রাচীন রাম মন্দির তৈরি হয়েছিল এক বৌদ্ধ বিহারের ধ্বংসাবশেষের উপরে। এই কারণে অযোধ্যায় বৌদ্ধ বিহার নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন মন্ত্রী।

আগামী ৫ অগস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমিপুজো অনুষ্ঠিত হওয়ার সব প্রস্তুতি প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে, এমন সময় একাধিক দলিত সংগঠনের সঙ্গে একসুরে বৌদ্ধ বিহার নির্মাণের দাবিতে সরব হলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার আঠাওয়ালে জানিয়েছেন, বাবরি মসজিদ ও রাম মন্দির তৈরির অনেক আগে রাম জন্মভূমিতে এক প্রাচীন বৌদ্ধ বিহার ছিল। তাঁর কথায়, ‘যে হেতু সুপ্রিম কোর্ট এই জমিতে রাম মন্দির গড়ার নির্দেশ দিয়েছে এবং বাবরি মসজিদ তৈরির জন্যও জমি দেওয়া হয়েছে, আমরা চাই বৌদ্ধ বিহার নির্মাণের জন্য অযোধ্যায় আমাদেরও জমি দেওয়া হোক।’

এই দাবি নিয়ে তি কিছু দিনের মধ্যে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলেও জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। 

আঠাওয়ালে ও দলিতদের দাবি সমর্থন জানিয়ে সংগীতশিল্পী আনন্দ শিন্ডে সমস্ত দলিত নেতাদের বিভেদ ভুলে বৌদ্ধ বিহার নির্মাণের দাবিতে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘রাম মন্দির নির্মাণের জন্য মাটি সমান করার সময় এই জমি থেকে বেশ কিছু প্রাচীন বৌদ্ধ স্তূপের ভগ্নাবশেষ পাওয়া গিয়েছে। দলিত নেতাদের উচিত একযোগে এখানে মিউজিয়াম ও বৌদ্ধ বিহার গড়ার জন্য আন্দোলনে নামা।’

এই সব দেখে ভারতীয় প্রজাতান্ত্রিক পার্টির গাওয়াই গোষ্ঠীর প্রধান রাজেন্দ্র গাওয়াই জানিয়ে দিয়েছেন, ‘অচিরেই দেশের তিন প্রধান ধর্মের তীর্থক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত হবে অযোধ্যা।’ 

বন্ধ করুন