বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'নজিরবিহীন', চিনের মিসাইল ভাণ্ডারে পারমাণবিক অস্ত্র মজুত নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ
চিনের পারমাণবিক অস্ত্রাগারের সম্প্রসারণ, ছবি সৌজন্যে টুইটার : প্ল্যানেট
চিনের পারমাণবিক অস্ত্রাগারের সম্প্রসারণ, ছবি সৌজন্যে টুইটার : প্ল্যানেট

'নজিরবিহীন', চিনের মিসাইল ভাণ্ডারে পারমাণবিক অস্ত্র মজুত নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ

  • স্যাটেলাইট চিত্রের মাধ্যমে চিনের তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র সাইটের গতিবিধি অধ্যয়ন করেছে মার্কিন এক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক।

চিনের তিনটি পারমাণবিক অস্ত্র সাইটে উল্লেখযোগ্য গতিবিধি লক্ষ্য করা গিয়েছে। সন্দেহভাজন ক্ষেপণাস্ত্র সাইলোগুলিতে এই গতিবিধিতে পশ্চিমা বিশেষজ্ঞরা উদ্বিগ্ন। যে তিনটি সাইটে এই উল্লেখযোগ্য গতিবিধি লক্ষ্য করা গিয়েছে সেগুলি চিনের উত্তর-মধ্য অঞ্চলে অবস্থিত। ইউমেন, হামি এবং ওর্ডোসের কাছে অবস্থিত সাইলোগুলিতে সাম্প্রতিক গতিবিধি নিয়ে চিন্তিত বিভিন্ন মহল।

চিনের এই গতিবিধির উফর নজর রাখছে ফেডারেশন অফ আমেরিকান সায়েন্টিস্টস। এটি একটি মার্কিন ভিত্তিক নির্দলীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্ক। তারা প্ল্যানেট ল্যাবস এবং ম্যাক্সার টেকনোলজিসের বাণিজ্যিক স্যাটেলাইট চিত্রের মাধ্যমে তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র সাইটের গতিবিধি অধ্যয়ন করেছে এই থিঙ্ক ট্যাঙ্ক।

থিঙ্ক ট্যাঙ্কটির বিশ্বাস এই সাইটগুলিতে চিন ৩০০ নতুন মিসাইল সাইলো তৈরি করছে। এই সংক্রান্ত রিপোর্টের লেখক ম্যাট কোর্দা এবং হ্যান্স এম ক্রিস্টেনসেন বলেন, 'চিনের জন্য এটি একটি নজিরবিহীন পারমাণবিক বিল্ডআপ। স্পষ্টত ক্ষেপণাস্ত্র সাইলো ক্ষেত্রগুলি সম্পূর্ণরূপে কার্যকর হতে এখনও অনেক বছর সময় লাগবে এবং চিন কীভাবে সেখানে অস্ত্র মজুত করবে ও তাপরিচালনা করবে, সেটা নজরে রাখতে হবে।'

কোর্দা এবং ক্রিস্টেনসেন উভয়েরই আশঙ্কা, যে দ্রুত গতিতে সাইলোগুলি তৈরি করা হচ্ছে তা পারমাণবিক প্রতিযোগিতা বাড়াতে পারে। পাশাপাশি অন্যান্য পারমাণবিক অস্ত্রধারী দেশগুলির মধ্যে সংঘাতের আবহাওয়া তৈরি হতে পারে। এবছরের জুন মাসে প্রথম সাইলো ফিল্ডটি আবিষ্কৃত হয়। আরও একটি প্রতিবেদনে জুলাই মাসে দ্বিতীয় সাইলো ক্ষেত্রটি আবিষ্কারের কথা উল্লেখ করা হয়েছিল। এফএএস তখন বলেছিল যে এই সাইটগুলি 'চিনা পারমাণবিক অস্ত্রাগারের সর্বকালের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সম্প্রসারণে'র দিকে ইঙ্গিত করে।

বন্ধ করুন