বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আগে সরকারি অর্থে কবরস্থান হত, এখন মন্দির তৈরি হয়, হিন্দুত্বে অস্ত্রে শান যোগীর
যোগী আদিত্যনাথ, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী (FILE PHOTO) (HT_PRINT)
যোগী আদিত্যনাথ, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী (FILE PHOTO) (HT_PRINT)

আগে সরকারি অর্থে কবরস্থান হত, এখন মন্দির তৈরি হয়, হিন্দুত্বে অস্ত্রে শান যোগীর

প্রশ্ন উঠছে, কোনও একটি বিশেষ ধর্মীয় রীতিনীতি পালনের ক্ষেত্রে কী সরকারিভাবে এভাবে অর্থ সাহায্য করা যায়।

বিধানসভা ভোটের মুখে ফের হিন্দুত্বের তাস খেললেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সম্প্রতি অযোধ্যায় দীপাবলি উৎসবের সূচনা করে যোগী জানালেন, আগে সরকারি টাকায় কবরস্থান তৈরি হত, এখন সেই টাকায় মন্দির তৈরি হয়। বছর ঘুরতেই উত্তর প্রদেশে বিধানসভা ভোট। তার আগে ‘‌আমরা–ওরা’‌ তত্ত্ব যোগীর মুখে।

দীপাবলি উৎসবের সূচনামঞ্চে এসে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘‌যাঁদের মাথায় সবসময় কবরস্থানের চিন্তা থাকে, তাঁরা কবরস্থানেই জন্যই টাকা খরচ করে। যাঁরা মন্দিরের চিন্তা করেন, সংস্কৃতির চিন্তা করেন, তাঁরা মন্দির তৈরি ও মন্দিরের উন্নয়নের কাজেই টাকা ব্যয় করবেন। এটাই চিন্তাভাবনার পার্থক্য।’‌ 

এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বিগত সরকারের সঙ্গে তাঁর সরকারের কর্মপদ্ধতির বিস্তর ফারাক আছে বলেও দাবি করেছেন তিনি। অযোধ্যার বুকে দাঁড়িয়ে রামমন্দিরের প্রসঙ্গ টেনে যোগী আদিত্যনাথ জানান, ‘‌৩০ বছর আগে এদেশে কর সেবা করলে গুলিবর্ষণ হত। এরপর যখন করসেবা হবে, তখন গুলি চলবে না, পুষ্পবৃষ্টি হবে।’

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যকে ঘিরেই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন, দেশের সংখ্যাগুরু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় রীতিনীতি পালনে সবরকম সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, কোনও একটি বিশেষ ধর্মীয় রীতিনীতি পালনের ক্ষেত্রে কী সরকারিভাবে এভাবে অর্থ সাহায্য করা যায়? 

বন্ধ করুন